শিরোনাম

একদিকে করোনা অন্যদিকে শৈত্যপ্রবাহে শীতের তীব্রতা তবুও শীতবস্ত্র ও শুকনো খাবার নিয়েই শ্রমিকের দ্বারে দ্বারে রাজু।

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, ডিসেম্বর ১১, ২০২০ ৩:০৯:০৯ অপরাহ্ণ
একদিকে করোনা অন্যদিকে শৈত্যপ্রবাহে শীতের তীব্রতা তবুও শীতবস্ত্র ও শুকনো খাবার নিয়েই শ্রমিকের দ্বারে দ্বারে রাজু।
একদিকে করোনা অন্যদিকে শৈত্যপ্রবাহে শীতের তীব্রতা তবুও শীতবস্ত্র ও শুকনো খাবার নিয়েই শ্রমিকের দ্বারে দ্বারে রাজু।

উত্তরাঞ্চলে টানা শৈত্যপ্রবাহের সঙ্গে  বাড়তে শুরু করেছে শীতের তীব্রতা। প্রকৃতির এমন আচরণ স্বভাবসুলভ হলেও শীত বস্ত্রের অভাবে চরম দূর্ভোগে পড়েছেন রংপুর জেলা ও মহানগরের অসংখ্য মটর শ্রমিকরা।

সকাল-সন্ধা খড়কুট জ্বালিয়ে অনেকে আগুনের তাপ নিচ্ছেন। রাতে বৃষ্টির মতো ঝিরঝির করে কুয়াশা ঝরছে। আর এর সঙ্গে বইছে হিমেল বাতাস। শীতের কারণে কষ্টে দিন কাটাচ্ছে শিশু ও বৃদ্ধরা। ফলে দৈনন্দিন কাজকর্ম ও শ্রমিকদের প্রাণ চাঞ্চল্যে দেখা দিয়েছে ভাটা। এমন অবস্থা রংপুরের  অধিকাংশ জেলা ও মহানগর শ্রমিকের। প্রয়োজনীয় শীত বস্ত্রের অভাবে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন রংপুরের মটর শ্রমিকরা।।

সরকারের পক্ষ থেকেও কিছু বরাদ্দা দেওয়া হলেও প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। বেসরকারি ভাবেও বিভিন্ন  শ্রমিক সংগঠন গুলো তে  পৌঁছেনি কোন শীত বস্ত্র। তাছাড়া বাজার থেকে শীতের গরম কাপড় কিনার মতো সামর্থ নেই সাধারণ শ্রমিকদের। ফলে তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বৃত্তশালীদের আহ্বান করছেন – রংপুর  মহানগর জাতীয় শ্রমিক পার্টির, সভাপতি, রাজু আহম্মেদ রাজু ড্রাইভার।

মটর শ্রমিক হুমায়ুন কবির মিঠু জানান, প্রচন্ড শীতে তারা কাবু হয়ে আছেন। এই শীতে জীবণযাপন করা খুবই কষ্টকর হয়ে পড়েছে

আজ শুক্রবার সকালে রংপুর মহানগরীর মাহিগঞ্জ, সাতমাথা, জাহাজ কোম্পানির মোড়, সিগারেট কোম্পানির মোড়সহ বিভিন্ন জায়গায়  কর্মহীন মটর শ্রমিকদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন “রংপুর মহানগর জাতীয় শ্রমিক পার্টির সভাপতি ও জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের” সাবেক সড়ক সম্পাদক, রাজু আহম্মেদ হাঁস।

এসময় তিনি বলেন, করোনা মহামারির কারণে  ব্যস্ততম এই রসিক নগরী  এখন নিশ্চুপ হয়ে গেছে। এই নগরীকে কেন্দ্র করে যারা শ্রম বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করতো, কাজ না থাকায় আজ তাদের আয় রোজগার বন্ধ হয়ে গেছে। মানুষ মানুষের জন্য, আর একজন শ্রমিক নেতা হিসেবে আমি মানুষের পাশে দাঁড়াতে ভালোবাসি। কারণ রাজনীতি তো অসহায় শ্রমিকের জন্যই করি। তাই আমি আশা করবো সমাজের সকল বিত্তবান মানুষরা ও এই অসময়ে অসহায় শ্রমিক ও সাধারণ মানুষের পাশে এসে দাড়াঁবেন।

মহানগর জাতীয় শ্রমিক পার্টির  শ্রম সাংগঠনিক  সম্পাদক, মোহাম্মদ মহসিন মল্লিক বলেন, ইতিমধ্যেই বাংলাদেশে শীতের প্রভাব পরেছে এবং শীত প্রধান অঞ্চলগুলোর অসহায়, দুস্থ মানুষদের দুঃখ, দুর্দশা শুরু হয়ে গেছে। শীতার্ত এ সব অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো আমাদের নৈতিক ও মানবিক দায়িত্ব।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন,মহানগর  জাতীয় শ্রমিক পার্টির শ্রম সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ মাজহার হোসেন মন্টু,  মহানগরীর ওয়ার্ড  আঞ্চলিক  কমিটির সাধারণ সম্পাদক আসাদুল ড্রাইভারসহ রংপুর মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের শ্রমিক ও নেতৃত্ব বৃন্দ।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us