শিরোনাম

কুষ্টিয়ার মিরপুরে পিতা ও দুই পুত্রকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে প্রভাবশালীরা

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, এপ্রিল ২, ২০২১ ১০:৪৩:০১ পূর্বাহ্ণ
কুষ্টিয়ার মিরপুরে পিতা ও দুই পুত্রকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে প্রভাবশালীরা
কুষ্টিয়ার মিরপুরে পিতা ও দুই পুত্রকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে প্রভাবশালীরা
হাসিবুল ইসলাম, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার বহলবাড়িয়া ইউনিয়নের জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় তিনজন রক্তাক্ত জখম হয়েছে।
১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে বহলবাড়ীয়া ইউনিয়নের নওদা খাড়ারা গ্রামে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় আহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালে জমি ক্রয় করে মিরপুর উপজেলার বহলবাড়িয়া ইউনিয়নের নওদা খাড়ারা গ্রামের শমসের মন্ডল এর ছেলে সাহাবুল।
কিন্তু স্থানীয় প্রভাবশালী আতিয়ার প্রামানিকের ছেলে লিয়াকত, শিপন, রিপন, লিটন ও নুরা প্রামাণিকের ছেলে হাবলু, ডাবলু, আনিসুর এবং মল্লিক প্রামানিকের ছেলে মহিদুল জমিটি জবর দখল করে রাখে। এ বিষয়ে কুষ্টিয়া কোর্টে একটি মিস কেস দায়ের করা হয়। যার নং ২৪।
মামলার পর থেকে এই প্রভাবশালী মহল বিভিন্নভাবে মামলা তুলে নেয়ার জন্য হুমকি ধামকি দিতে থাকে এমনকি সাহাবুল কে মারধর করে এ বিষয়ে জানুয়ারি মাসে মিরপুর থানায় আরো একটি মামলা দায়ের করেন সাহাবুল মামলা নং ২।
এরপরে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে ওই প্রভাবশালী মহল এদের জের ধরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সাহাবুল এর উপর দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় তারা। আহত শাহাবুলের পরিবার সূত্রে আরো জানা যায়, বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী তামাক কয় করেন সাহাবুল, সন্ধ্যার আগে কয়কি তো তামাকের টাকা দিতে যাওয়ার সময় পথের মধ্যে প্রভাবশালী আতিয়ার প্রামানিকের ছেলে লিয়াকত, শিপন, রিপন, লিটন ও নুরা প্রামাণিকের ছেলে হাবলু, ডাবলু, আনিসুর এবং মল্লিক প্রামানিকের ছেলে মহিদুল সহ অজ্ঞাত আরও অনেকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে।
এ সময় তার আত্মচিৎকারে শাহাবুলের পিতা শমসের আলী মন্ডল ও বড় ভাই জাপান মন্ডল ছুটে আসলে তাদেরকেও এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে প্রভাবশালী সন্ত্রাসী বাহিনী। পরে স্থানীয়রা ছুটে এসে আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে মিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।
আহতদের অবস্থা আশংকাজনক দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে রেফাট করে। আহতদের মধ্যে শমসের মন্ডলের অবস্থার উন্নতি না হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রেফার্ড করা হয় রাজশাহীতে। আহত সাহাবুল জানান হামলাকারীরা তার কাছে থাকা নগদ প্রায় ছয় লক্ষ টাকা ও স্বাক্ষরকৃত ৭টি চেক বই ছিনিয়ে নেয়।
এ বিষয়ে মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা হামলার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,
হামলার ঘটনার বিষয়ে জানতে পেরেছি এবং এই ঘটনায় জড়িতদের তিনজনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের ধরার প্রক্রিয়া চলছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us