শিরোনাম

গুগল ডুডলে সুফিয়া কামাল

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, জুন ২০, ২০১৯ ৫:৪২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

সুফিয়া কামাল

বাংলাদেশে নারী মুক্তি জাগরণের অগ্রদূত কবি বেগম সুফিয়া কামালের আজ ১০৮তম জন্মবার্ষিকী। তার সম্মানে বিশেষ ডুডল প্রদর্শন করছে গুগল। যদিও কেবল বাংলাদেশ থেকেই দেখা যাচ্ছে এ ডুডলটি। বুধবার রাত ১২টার পর থেকে সুফিয়া কামালকে নিয়ে তৈরি এ ডুডলটি দেখাতে শুরু করেছে গুগল।

বেগম সুফিয়া কামাল (জন্ম: ২০শে জুন, ১৯১১ – মৃত্যু: ২০শে নভেম্বর, ১৯৯৯) বাংলাদেশের একজন প্রথিতযশা কবি, লেখিকা, নারীবাদী ও নারী আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃৎ হিসেবে অতি পরিচিত ব্যক্তিত্ব।

সুফিয়া কামাল ১৯১১ সালের ২০ জুন বরিশালের শায়েস্তাবাদে মামার বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। সুফিয়া কামালের জন্ম যে সময়ে তখন বাঙালি মুসলিম নারীদের কাটাতে হত গৃহবন্দি জীবন। স্কুল কলেজে পড়ার কোনও সুযোগ তাঁদের ছিলও না। ওই বিরুদ্ধ পরিবেশে সুফিয়া কামাল প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সুযোগ পাননি। তিনি পারিবারিক নানা উত্থান পতনের মধ্যে স্বশিক্ষায় শিক্ষিত হয়েছেন। যে পরিবারে সুফিয়া কামাল জন্মগ্রহণ করেন সেখানে নারীশিক্ষাকে প্রয়োজনীয় মনে করা হত না। তিনি তাঁর মা সাবেরা বেগমের কাছে বাংলা পড়তে শেখেন। ১৯২৪ সনে মাত্র ১৩ বছর বয়সে মামাতো ভাই সৈয়দ নেহাল হোসেনের সাথে সুফিয়ার বিয়ে দেওয়া হয়। নেহাল অপেক্ষাকৃত আধুনিকমনস্ক ছিলেন, তিনি সুফিয়া কামালকে সাহিত্যপাঠে উৎসাহিত করেন। সুফিয়া সে সময়ের বাঙালি সাহিত্যিকদের লেখা পড়তে শুরু করেন। ১৯১৮ সালে কলকাতায় গিয়েছিলেন সুফিয়া কামাল। সেখানে বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের সঙ্গে তাঁর দেখা হয়।

সাহিত্য পাঠের পাশাপাশি সুফিয়া কামাল সাহিত্য রচনা শুরু করেন। ১৯২৬ সালে তাঁর প্রথম কবিতা বাসন্তী সে সময়ের প্রভাবশালী সাময়িকী সওগাতে প্রকাশিত হয়। ত্রিশের দশকে কলকাতায় অবস্থানকালে বাংলা সাহিত্যের উজ্জ্বল নক্ষত্র যেমন রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, শরৎচন্দ্র প্রমুখের দেখা পান। মুসলিম নারীদের সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহণকে উৎসাহিত করার জন্য বেগম রোকেয়ার প্রতিষ্ঠিত সংগঠন ‘আঞ্জুমানে খাওয়াতিনে ইসলামে’ রোকেয়ার সঙ্গে সুফিয়া কামালের পরিচয় হয়। বেগম রোকেয়ার চিন্তাধারা ও প্রতিজ্ঞা তাঁর মধ্যেও সঞ্চারিত হয়, যা তাঁর জীবনে সুদূরপ্রসারী প্রভাব ফেলে।

সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি তাঁর সাহিত্যচর্চা চলতে থাকে। ১৯৩৭ সালে তাঁর গল্পের সংকলন কেয়ার কাঁটা প্রকাশিত হয়। ১৯৩৮ সালে তাঁর প্রথম কাব্যগ্রন্থ সাঁঝের মায়ার মুখবন্ধ লিখেন কাজী নজরুল ইসলাম। বইটি বিদগ্ধজনের প্রশংসা কুড়ায় যাঁদের মাঝে ছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের পর সুফিয়া কামাল পরিবারসহ ঢাকায় চলে আসেন। ভাষা আন্দোলনে তিনি নিজে সক্রিয় ভাবে অংশ নেন এবং এতে অংশ নেওয়ার জন্য নারীদের উদ্বুদ্ধ করেন। স্বাধীন বাংলাদেশে নারীজাগরণ আর সমঅধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে তিনি উজ্জ্বল ভূমিকা রেখে গেছেন। ১৯৯০ সালে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে শরিক হয়েছেন, কারফিউ উপেক্ষা করে নীরব শোভাযাত্রা বের করেছেন। মুক্তবুদ্ধির পক্ষে এবং সাম্প্রদায়িকতা ও মৌলবাদের বিপক্ষে আমৃত্যু তিনি সংগ্রাম করেছেন। প্রতিটি প্রগতিশীল আন্দোলনে অংশ নিয়েছেন।

১৯৯৯ সালের ২০ নভেম্বর ঢাকায় সুফিয়া কামাল মৃত্যুবরণ করেন।

আরও পড়ুনঃ

কলাপাড়ায় তুলা গাছ থেকে পড়ে এক বৃদ্ধের মৃত্যু ॥
বানারীপাড়ায় হাসপাতাল থেকে মৃত ঘোষিত শিশু দাফনের প্রস্তুতিকালে নড়ে ওঠায় বিক্ষোভ
জয়পুরহাট র‍্যাব ক্যাম্পের পৃথক অভিযানে ১টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ৪ কেজি গাঁজাসহ আটক-২
রূপগঞ্জে আম পারাকে কেন্দ্র করে দু‘পক্ষের সংঘর্ষে নিহত-১ আহত-৪
জয়পুরহাটে আব্দুল গাফ্ফার চৌধরীর মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব ও বাংলা টিভির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত
মহিপুরে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত ॥
পরশুরামের শাহীন চৌধুরী হত্যা মামলায় সাবেক ইউপি মেম্বার যুবলীগ নেতা জাহিদ কারাগারে
শুরু হলো পাবনার ইছামতি নদী পারের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান।
Spread the love
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us