1. admin@sonarbangla365.com : newsbangla2023 :
গোয়েন্দা -পুলিশ পরিচয়ে বিরোধী কর্মীদের বাসায় গিয়ে চাঁদাবাজি - Sonar Bangla365
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৩:৩৩ পূর্বাহ্ন
আপডেট নিউজ

গোয়েন্দা -পুলিশ পরিচয়ে বিরোধী কর্মীদের বাসায় গিয়ে চাঁদাবাজি

আরিফুর রহমান
  • Update Time : শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২৩
  • ১৮৬ Time View
গোয়েন্দা -পুলিশ পরিচয়ে বিরোধী কর্মীদের বাসায় গিয়ে চাঁদাবাজি
গোয়েন্দা -পুলিশ পরিচয়ে বিরোধী কর্মীদের বাসায় গিয়ে চাঁদাবাজি

আসন্ন নির্বাচন ঘিরে নির্বাচনকেন্দ্রিক অপরাধও বাড়ছে। সম্প্রতি পুলিশ, র্যাব ও গোয়েন্দা সংস্থার পরিচয়ে বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের বাসাবাড়িতে গিয়ে গ্রেফতারের কথা বলে চাঁদাবাজি হচ্ছে। শুধু ঢাকা নয়, সারা দেশেই এ ধরনের অপরাধ ছড়িয়ে পড়েছে। সবক্ষেত্রেই যে অপরাধীরা এটা করছে, এমনটিও নয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কতিপয় সদস্যও এসব অপরাধের সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। যদিও পুলিশ সদর দপ্তর থেকে এ ব্যাপারে কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তার পরও থামছে না। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে হেলমেট বাহিনী। হেলমেট পরে অনেকেই এই ধরনের অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে।

গত বুধবার রাজধানীর কলাবাগানে একজন বিএনপি নেতার বাসায় ডিবি পরিচয়ে গ্রেফতারের জন্য গিয়ে ১ লাখ টাকা নিয়ে এসেছে। ঐ বিএনপি নেতা কিডনি রোগী। তিনি অনেক দিন ধরে অসুস্থ। অথচ তার বাসায় গিয়ে ডিবি পরিচয়ে গ্রেফতারের কথা বলে। গ্রেফতার এড়াতে ৫ লাখ টাকা দাবি করে ঐ দলটি। এত টাকা কীভাবে দেবে? জানতে চাইলে তার স্ত্রীকে বলে, টাকা না থাকলে গহনা দিয়ে দেন। পরে তিনি ১ লাখ টাকা সংগ্রহ করে তাদের হাতে দেওয়ার পর তারা বাড়ির সিসিটিভির সব ফুটেজ নিয়ে চলে যায়।

ডিবির কোনো টিম কি ঐ বিএনপি নেতাকে গ্রেফতারের জন্য গিয়েছিল? জানতে চাইলে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার হাবিবুর রহমান বলেন, বিষয়টি তিনিও শুনেছেন। খোঁজখবর নিচ্ছেন। তবে তিনি বলেন, ডিবির কেউ গেলে তাদের একটা নির্দিষ্ট জ্যাকেট আছে। সেখানে কিউআর কোড আছে। যে কেউ ইচ্ছে করলেই সেই কোড স্ক্যান করে তার পরিচয় নিশ্চিত হতে পারেন। পোশাক ছাড়া কাউকে অভিযানে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। কোথাও অভিযানকারী দলের পরিচয় নিয়ে সন্দেহ হলে তারা ৯৯৯-এ ফোন করেও সহযোগিতা চাইতে পারেন।

শুধু ঢাকা নয়, দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে এমন অভিযোগ আসছে। গত ২৮ অক্টোবর পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের পর বেশ কয়েকটি মামলা হয়েছে। পুলিশ কনস্টেবল হত্যার ঘটনায়ও মামলা হয়েছে। এসব মামলায় বিএনপির কয়েক শ নেতাকে আসামি করা হয়েছে। এর বাইরেও বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে বিপুলসংখ্যক মামলা রয়েছে। সেই পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশের গ্রেফতার অভিযান চলছে। বিরোধী নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের এই প্রক্রিয়ার মধ্যে এক ধরনের অপরাধী চক্র সুযোগ নিচ্ছে বলে মনে করেন অনেকে।

জানা গেছে, বিএনপির অধিকাংশ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। সেই সুযোগই নিচ্ছে অপরাধী চক্র। আবার স্থানীয় কিছু পুলিশ সদস্যও এ ধরনের অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। পুলিশ সদর দপ্তর থেকে সারা দেশে কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এর আগেও কয়েক জন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। জানা গেছে, পুলিশের সঙ্গে রাস্তায় থাকা হেলমেট বাহিনীও এই ধরনের অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে। এরা এখন সাধারণ মানুষের কাছে আতঙ্ক হয়ে পড়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © 2017-2023 SonarBangla365
Theme Customized BY LatestNews
%d bloggers like this: