শিরোনাম

ঘুমন্ত মেয়ের গলায় ছুরি ধরে বিধবা মহিলাকে ধর্ষণ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, ডিসেম্বর ২৯, ২০২১ ১১:০৭:৫৩ অপরাহ্ণ
ঘুমন্ত মেয়ের গলায় ছুরি ধরে বিধবা মহিলাকে ধর্ষণ
ঘুমন্ত মেয়ের গলায় ছুরি ধরে বিধবা মহিলাকে ধর্ষণ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ঘুমন্ত মেয়ের গলায় ছুরি ধরে জিম্মি করে এক ভাড়াটিয়া নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়েছে।

ধর্ষণের শিকার নারীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, চল্লিশ বছর বয়সী ওই নারী তিন সন্তানের জননী। সদর উপজেলার একটি গ্রামের বাসিন্দা। গত দুই বছর আগে স্বামী মারা যাওয়ায় মাস দুয়েক আগে ফের তার বিয়ে হয়। তার বর্তমান স্বামী পেশায় সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক। বিয়ের পর তিনি স্বামীর সঙ্গে পৌর এলাকার দত্তপাড়ায় ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস শুরু করেন। তাদের পাশের রুমে বসবাস করতেন বাড়ির মালিক একাদুলের ছেলে আকাশ (১৯)। বাবা অন্যত্র থাকায় মাহিন্দ্র চালক আকাশ একাই সেখানে থাকতেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, গত রোববার রাত ১টার দিকে আকাশ ভাড়াটিয়ার ঘরের দরজা খোলার জন্য ধাক্কাধাক্কি শুরু করেন। দরজা খুলতেই আরও চার সঙ্গীকে নিয়ে তিনি রুমে প্রবেশ করেন।

দেশীয় অস্ত্রহাতে নারীর স্বামীকে ভয় দেখাতে শুরু করেন। অস্ত্রধারীদের ভয়ে পালিয়ে যান ওই নারীর স্বামী। পরে ওই পাঁচ যুবক তাকে ধর্ষণ করেন। ঘটনা স্থানীয়দের জানিয়ে গত মঙ্গলবার থানায় যান ওই নারী। রাতে বাদী হয়ে মামলা করেন। এতে পাঁচজনকে আসামি করা হয়। তারা হলেন জুবায়েদ হোসেন আকাশ, আপন মিয়া, মো. জামাল মিয়া, বাবু ওরফে হাড্ডি বাবু ও মো. সোহেল মিয়া। সোহেলের নাম ছাড়া অন্য কোনো পরিচয় জানা যায়নি। বাকিরা সবাই দত্তপাড়ার বাসিন্দা।

নির্যাতিত নারী মোবাইল ফোনে জানান, বাড়ির মালিকের ছেলে ঘুমন্ত অবস্থায় তাদের ডেকে তোলেন। ঘরের দরজা খুলতেই অস্ত্রের মুখে তার স্বামীকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। এরপর পুরো ঘর তছনছ করে। পরে তার চার বছর বয়সী ঘুমন্ত মেয়ের গলায় ছুরি ধরে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে তার ওপর নির্যাতন চালায় পাঁচজন। বিষয়টি কাউকে না বলতেও হুমকি দেওয়া হয়। ভয়ে তার স্বামী এখনও পলাতক। তিনি ন্যায়বিচারের জন্য মামলা করেছেন।

পুলিশ বাড়ির মালিকের ছেলে ও প্রধান অভিযুক্ত জুবায়েদ হোসেন আকাশকে গ্রেপ্তার করে বুধবার সন্ধ্যায় আদালতে হাজির করে। ময়মনসিংহ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব আহাম্মদ তালুকদারের আদালতে তিনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us