শিরোনাম

চাকরির বয়স ১০ বছর হলে উচ্চতর গ্রেড দিতে বাধা নেই

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : রবিবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ ১:৫৬:০৭ অপরাহ্ণ
চাকরির বয়স ১০ বছর হলে উচ্চতর গ্রেড দিতে বাধা নেই
চাকরির বয়স ১০ বছর হলে উচ্চতর গ্রেড দিতে বাধা নেই

যেসব সরকারি কর্মচারীর চাকরির বয়স ১০ বছর হয়ে গেছে কিন্তু পদোন্নতি বা টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড একবারও পাননি, তাদের ক্ষেত্রে উচ্চতর গ্রেড দিতে কোনো বাধা নেই। তাদেরকে উচ্চতর গ্রেড দেয়ার জন্য হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের কার্যালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলেছে অর্থ মন্ত্রণালয়। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, যেসব সরকারি কর্মচারী একই পদে ১০ বছর চাকরি করার পর একবারও পদোন্নতি পাননি, তাদের ক্ষেত্রে উচ্চতর গ্রেড দেয়ার ক্ষেত্রে গত ১৬ আগস্ট অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের মতামত চেয়ে চিঠি দেয় হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের কার্যালয়। এর প্রেক্ষিতে অর্থ বিভাগ গত ১৩ সেপ্টেম্বর হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের কাছে চিঠি দিয়ে জানিয়েছে, জাতীয় বেতনস্কেল, ২০১৫ এর অনুচ্ছেদ ৭ (১) এর অধীনে উচ্চতর গ্রেড প্রদানের বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণে কোনো বাধা নেই।

তবে ২০১৬ সালের ২১ সেপ্টেম্বর অর্থ বিভাগের এক পরিপত্রে বলা হয়েছিল, একই পদে কর্মরত কোনো সরকারি কর্মচারী দুই বা তার চেয়ে বেশি টাইম স্কেল বা সিলেকশন গ্রেড পেয়ে থাকলে নতুন পে স্কেল অনুযায়ী তিনি উচ্চতর গ্রেড পাবেন না। তবে এরই মধ্যে একটি মাত্র টাইম স্কেল অথবা সিলেকশন গ্রেড পেলে নতুন স্কেলে শুধু একটি উচ্চতর গ্রেড পাবেন। ওই পরিপত্রের বিরুদ্ধে সরকারি চাকরিজীবীরা রিট করলে অবৈধ ঘোষণা করেন হাইকোর্ট। এ বিষয়টি এখন হাইকোর্টের আপিল বিভাগে বিচারাধীন রয়েছে। তাই সরকারি কর্মচারী দুই বা তার চেয়ে বেশি টাইম স্কেল বা সিলেকশন গ্রেড পেয়ে থাকলে নতুন পে স্কেল অনুযায়ী তিনি উচ্চতর গ্রেড কায়টা পাবেন এসব বিষয়ে কোনো মতামত দেয়নি অর্থ বিভাগ। এ বিষয়ে আপিল বিভাগ যতদিন পর্যন্ত কোনো রায় না দিতে পারে, অর্থ বিভাগ এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না।

জানা গেছে, সরকারি চাকরিতে নিচের স্তরের কর্মচারীদের পদোন্নতির সুযোগ সীমিত। এসব পদোন্নতি বঞ্চিতদের আর্থিক সুবিধা নিশ্চিত করতে বর্তমান সরকার বহুল আলোচিত টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেডের পুরনো প্রথা জাতীয় বেতনস্কেল, ২০১৫ এ বাতিল করা হয়। তবে নতুন বেতনস্কেলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে উচ্চতর গ্রেড প্রথা প্রবর্তন করা হয়। বেতনস্কেলে ২০১৫ এর অনুচ্ছেদ ৭ (১) অনুযায়ী কোনো কর্মচারী একই পদে ১০ বছর চাকরি করার পর পদোন্নতি না পেলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে দুটি উচ্চতর গ্রেড পাবেন। এর মধ্যে একটি পাবেন চাকরির ১০ বছর পর ১১তম বছরে। অপরটি ১৬ বছর পর ১৭তম বছরে। মূল পে স্কেলে এ বিধান করা হলেও এ সুবিধা কিভাবে দেয়া হবে সে বিষয়ে কোনো দিকনির্দেশনা ছিল না। এ প্রেক্ষাপটে মূল পে স্কেলে দেয়া উলি্লখিত নিয়ম কার্যকর করতে স্পষ্টকরণের ব্যাখ্যা দিয়ে ২০১৬ সালের ২১ সেপ্টেম্বর অর্থ বিভাগ একটি পরিপত্র জারি করে। কিন্তু ওই পরিপত্রের বিরুদ্ধে সরকারি চাকরিজীবীরা রিট করে। এরপর সরকারি চাকরিজীবীদের স্বয়ংক্রিয়ভাবে উচ্চতর গ্রেড পাওয়ার বিষয়ে অর্থ বিভাগের দেয়া পরিপত্রকে অবৈধ ঘোষণা করেন হাইকোর্ট।

আরও পড়ুনঃ

“এশিয়ার সর্ববৃহত্তর দুর্গা মন্দির” বাগেরহাটের শিকদার বাড়ি মন্দিরে পুজা উর্যাপিত হচ্ছে সরকারি বিধি নি...
স্বাধীনতার ৪৮ বছর অথচ " জাতির জনকের "প্রতিচ্ছবি (জলছাপ)ব্যবহার নেই! দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজে,...
আক্কেলপুর উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও খাস জমি উদ্ধার
জয়পুরহাটে এক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধাণ শিক্ষক সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত
রোহিঙ্গা সংকটে জাতিসংঘকে কার্যকর ভূমিকা রাখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
রায়হান হত্যার মূল আসমি শীঘ্রই গ্রেপ্তার হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
বৃষ্টির পরই আসছে শীত!
ব্যারিস্টার রফিকের আশা পূরণেই তিনি শান্তি পাবেন : নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবি
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর