শিরোনাম

ছাত্রদলের সমাবেশ পণ্ড

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, মার্চ ১, ২০২১ ২:০২:৩৯ পূর্বাহ্ণ
ছাত্রদলের সমাবেশ পণ্ড
ছাত্রদলের সমাবেশ পণ্ড

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় কারাবন্দি অবস্থায় লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর প্রতিবাদ এবং প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের ডাকা বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশের সঙ্গে নেতাকর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে।

গতকাল রবিবার সকাল সোয়া ১১টার দিকে শুরু হওয়া এই সংঘর্ষ কিছুক্ষণ থেমে থেমে চলতে থাকে। পরে পুলিশ টিয়ার গ্যাসের শেল নিক্ষেপ এবং লাঠিপেটা করে জমায়েত হওয়া নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে বিএনপির উত্তেজিত নেতাকর্মীদের ইটপাটকেল ছুড়তে দেখা গেছে। সংঘর্ষের ঘটনায় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মামুন খান, পুলিশ, সাংবাদিকসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ছাত্রদলের অন্তত ১০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগ এলাকা থেকেও চিকিৎসা নিতে যাওয়া সাতজনকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় শাহবাগ থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন। পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, কোনো প্রকার অনুমতি না নিয়ে পরিকল্পিতভাবে বিনা উসকানিতে সংঘর্ষের জন্য সমাবেশ করে ছাত্রদল। আর ছাত্রদলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, পুলিশ বিনা উসকানিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে হামলা করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ছাত্রদলের কর্মসূচি ঘিরে সকাল থেকে প্রেস ক্লাব এলাকায় ব্যাপক পুলিশের উপস্থিতি ছিল। সকাল ১০টা থেকে প্রেস ক্লাবের ভেতরে জমায়েত হতে শুরু করেন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। ছাত্রদলের নেতাদের সঙ্গে পুলিশ কথা বলতে প্রেস ক্লাবের ভেতরে গেলেও সেখান থেকে কোনো সমাধান আসেনি। সকাল ১১টার দিকে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল জাতীয় প্রেস ক্লাব চত্বরে এসে পুলিশের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। পুলিশ সোহেলকে জানিয়ে দেয়, অনুমতি ছাড়া কোনো সমাবেশ প্রেস ক্লাবের সামনে করা যাবে না। জবাবে বিএনপি নেতারা বলেন, প্রেস ক্লাবে সবাই প্রতিবাদ জানাতে আসেন। তাঁরাও শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ জানাবেন।

এরপর ১১টার কিছু পর ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা প্রেস ক্লাবের ভেতর থেকে বাইরে বেরিয়ে এসে সড়কে অবস্থান নেন। তখন পুলিশ তাঁদের সড়ক থেকে উঠে যেতে বললে তাঁরা রাজি হননি। এর পরই পুলিশ তাঁদের ধাওয়া দিয়ে তুলে দেওয়ার চেষ্টা করলে সংঘর্ষের সূত্রপাত। এই বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রধান অতিথির বক্তব্য দিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবে উপস্থিত হয়েছিলেন। ঘটনার আকস্মিকতায় ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে মুহূর্তেই জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। সাধারণ মানুষ এদিক-সেদিক ছুটতে থাকে। বন্ধ হয় যায় যান চলাচল। পুলিশের সঙ্গে নেতাকর্মীদের ধাওয়াধওয়ির মধ্যেই প্রায় ২০ রাউন্ড টিয়ার গ্যাসের শেল নিক্ষেপ এবং বেপরোয়া লাঠিপেটা করা হয়।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভেতরে পুলিশের টিয়ার শেল নিক্ষেপ ও লাঠিপেটার ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us