শিরোনাম

ছড়া সুদের যন্ত্রণায় ‘যুবকের আত্মহত্যা’ কারবারির বিরুদ্ধে মামলা

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, আগস্ট ১৯, ২০২২ ৯:০১:১১ অপরাহ্ণ
ছড়া সুদের যন্ত্রণায় ‘যুবকের আত্মহত্যা’ কারবারির বিরুদ্ধে মামলা
ছড়া সুদের যন্ত্রণায় ‘যুবকের আত্মহত্যা’ কারবারির বিরুদ্ধে মামলা

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

ছড়া সুদে টাকা নিয়ে ‘সুদ’ কারবারির যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় ফয়সাল আহমদ সৌরভ (২৫) নামে এক যুবক ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) রাত ৯ টায় তাহিরপুর উপজেলায় এমন একটি অনাকাঙ্কিত ঘটে। নিহত ফয়সাল আহমেদ সৌরভ তাহিরপুর উপজেলার বালিজুরী ইউনিয়নের পাতারি গ্রামের আজিজুর রহমানের ছেলে।

এ ঘটনায় শুক্রবার বেলা ৩ ঘটিকায় নিহত ফয়সাল আহমেদ সৌরভ এর পিতা আজিজুর রহমানের দুইজনকে আসামী করে তাহিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন, মামলার আসামীরা হলো- আনোয়াপুর গ্রামের মৃত মুসলিম উদ্দিনের ছেলে সফিক মিয়া (৩৭), অপরজন নুরপুর গ্রামের মতি মিয়ার ছেলে রফিক মিয়া (৫০)।

ঘটনার আগে নিজের ফেসবুকে আইডিতে পোস্ট দিয়ে আত্মহত্যার ঘোষণা দিয়েছিলেন ফয়সাল। এমন পোস্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বাড়ির লোকজন খোঁজতে থাকেন ফয়সাল আহমদকে, প্রায় এক ঘন্টা পর পার্শবর্তী বালু পাথরের একটি অফিস ঘরের পশ্চিমে অবস্থিত বট গাছে রশি পেঁচানো অবস্থায় তাকে উদ্ধার করেন পরিবারের লোকজন।

‘মৃত্যুর আগে নিজ ফেজবুক ফয়সাল আহমেদ সৌরভ নামের আইডিতে যা লিখেছিলেন তা তুলে ধরা হলো, ‘আমি গলায় দরি (দড়ি) দিলাম তুই ‘রফিকের লাগি, তুই আমারে কাবু করিয়া লাশ বানাইলি, তুই ভালো থাক বেইমান। সফিকের কাছ থেকে এক লক্ষ টাকা সুদে আনছিলাম, তিন লক্ষ টাকা দেওয়ার পরও এখনও সাড়ে তিন লক্ষ টাকা পায়। এই রফিক আর সফিকের লাগি আত্মহত্যা করলাম। ভালো থাক আমার পরিবার। মা ফাইজা, আমায় ক্ষমা করো। মা-বাবা, ভাই-বোন আমায় ক্ষমা করো। বউ তোমাকে কিছু বলার নেই–ইতি এক কাপুরুষ।’

বালিজুরি ইউনিয়নের বিট অফিসার থানার (এসআই) মো. নাজমুল হক মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় নিহতের পিতা একটি মামলা দায়ের করেছেন উক্ত আসামীদের দ্রুতভাবে আইনের আওতায় আনা হবে।

রাহাদ হাসান মুন্না,

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

Spread the love
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us