শিরোনাম

জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, জুন ১১, ২০২১ ৭:৩৫:২৭ অপরাহ্ণ
জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম
জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

বরগুনার আমতলীতে জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে আঠারগাছিয়ার গাজীপুর বন্দর ফাজিল মাদরাসার প্রভাষক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা মো. ফোরকান মুছুল্লীকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার গাজীপুর বন্দরের বাসিন্দা মো. মোতালেব মৃধার পুত্র মিঠু মৃধা, কন্যা রেহেনা বেগম ও তার নাতিন শাকিল মৃধার সাথে পশ্চিম গাজীপুর গ্রামের মাওলানা মো. ফোরকান মুছুল্লীর বন্দরের মন্দিরের পাশে একটি দোকান ঘরের জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। গোপনে ওই বিরোধীয় জমিতে মিঠু ও শাকিল ঘর তুলতে গেলে ফোরকান মুছুল্লী তাদের বাধা দেন। এ বিষয় নিয়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও বাজার কমিটির লোকজন একাধিকবার শালিশ বৈঠক করলেও এর ফয়সালা হয়নি।

আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বিরোধীয় জমিতে তারা জোরপূর্বক ঘর তুলতে গেলে মুছুল্লী ও তার লোকজন এতে বাধা দেন। এর কিছুক্ষণ পরে মুছুল্লী গাজীপুর বন্দরের হাজী রুহুল আমিনের কাপড়ের দোকানের সামনে যান। এ সময় তার প্রতিপক্ষ মিঠু ও শাকিল তার লোকজন এনে তাকে গালাগাল করেন। উভয় পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় এবং স্থানীয়রা তাদের মীমাংসা করে দেয়। এর কিছুক্ষণ পরে মিঠু ও শাকিলের নেতৃত্বে ১০/১২ জন এসে মুছুল্লীকে দেশীয় অস্ত্র দা ও চাপাতি দিয়ে হাত, বুক ও পিঠে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে চলে যায়। এ সময় গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় ওই হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

গাজীপুর বন্দরের হাবিবুর রহমান বলেন, মোতালেব মৃধার পুত্র মিঠু মৃধা একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও মাদকাসক্ত। সে বিগত দিনে একাধিক সন্ত্রাসী কার্যকলাপ সাথে সরাসরি জড়িত ছিল।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শাকিল মৃধা ও তার পিতা মো. মোতালেব মৃধার ব্যবহৃত মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি ফোন রিসিফ করেননি।

আমতলী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহআলম হাওলাদার বলেন, এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us