শিরোনাম

জামালপুরে মুন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের জায়গা দিয়ে প্লটের রাস্তা নেয়ার অভিযোগ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, জুলাই ২৬, ২০২১ ১০:৪৫:২৮ অপরাহ্ণ
এস.এম হোসাইন আছাদ, জামালপুর ॥
জামালপুর পৌরসভার ১১নং ওয়ার্ড পলাশগড়ে অবস্থিত মুন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের জায়গা দিয়ে পেছনের বেশ কয়েকটি প্লটের রাস্তা নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, একটি স্বার্থান্বেষী মহল ও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মিলে প্লটের (জমির) ব্যবসায় লাভবান হওয়ার লক্ষ্যে বিদ্যালয়টির জায়গা দিয়েই এই রাস্তাটি নির্মাণ করছে। ২-৩ দিন আগেও বলা হয়েছে প্লট কিনতে আসা লোকদের যে এই রাস্তাটা প্লটেরই বিদ্যালয়ের না।
অভিযোগ প্রসঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষক মো. ছরোয়ার হোসেন শান্ত বলেন, আমি স্কুলের প্রধান শিক্ষক হিসেবেই বলছি এই রাস্তাটি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য। স্কুলের জমি প্লট ওয়ালাদের কিভাবে দিব? কোন প্রতিষ্ঠানের জমি অন্য কাউকে দেয়া যায় তা আমার জানা নেই। স্কুল কর্তৃপক্ষের কাউকে ব্যবসায়িক সুবিধা দেওয়ার এখতিয়ার নাই। মেইন রোড থেকে স্কুলের অফিস রুম পর্যন্ত ইটের সলিং করে রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে যাতে বৃষ্টিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সমস্যা না হয়। স্কুলের সীমানা প্রাচীর ও একটি শহীদ মিনার নির্মাণ করার জন্য আমরা স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ে একটি প্রকল্প জমা দেওয়া আছে। যে প্রকল্পটা পাশ হলে সীমানা প্রাচীর, গেইট ও শহীদ মিনার নির্মাণ করা হবে। একটি কুচুক্রিমহল স্কুলের উন্নয়ন হোক এটা চায় না। যে কারনে তারা আপনাদের কাছে মিথ্যাচার করেছে।
তিনি বলেন, স্কুলের জমি হলো ৫৫ শতাংশ আমরা ব্যবহার করছি দাতার জমিসহ ১ একর ৩ শতাংশ। দাতারা সময় সুযোগ করে বাকী ৪৮ শতাংশ জমি স্কুলের নামে লিখে দিবে তাদের একমাত্র সন্তান মুনের স্মরণে স্কুলটি যেন সুস্থ্য ও সুন্দর পরিচালিত হয় সেই চেষ্টা দাতাদের আছে। প্রধান শিক্ষক আরও বলেন, আমরা দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে বিনা এমপিওভুক্ত অবস্থায় শিক্ষাদান করে যাচ্ছি। জামালপুর সদর আসনের এমপি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, সদস্যসহ বিভিন্ন উচ্চ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ও কর্মকর্তাদের কাছ থেকে সহযোগীতা নিয়ে কোনরকমে স্কুলটা পরিচালনা করছি। বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে আমরা স্কুলের শিক্ষককেরা খেয়ে না খেয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছি। আমাদের দুরাবস্থার কথা আপনাদের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করে স্কুলটির দ্রুত এমপিওভুক্তির দাবি জানাচ্ছি।
বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা মরহুম আলহাজ খলিলুর রহমানের ছোট ভাইয়ের ছেলে মো. আব্দুর রাজ্জাক মাস্টার, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য এবারত হোসেন, স্থানীয় এলাকাবাসী আওয়ামী লীগ নেতা মাজহারুল ইসলাম মঞ্জু প্লটের রাস্তার বিষয়ে অভিযোগটি অস্বীকার করে বলেন, বিদ্যালয়ের জমির উপর দিয়ে অন্য কোন রাস্তা নির্মাণ করার এখতিয়ার বিদ্যালয়ের সভাপতি, প্রধান শিক্ষকসহ ম্যানেজিং কমিটির কারোরই নেই। যারা এমন অভিযোগ করছেন তারা অপপ্রচার চালাচ্ছে। বিদ্যালয়টি এমপিওভুক্তকরণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জামালপুর সদরের মাননীয় এমপি মহোদয়ের সুদৃষ্টিও কামনা করেন তারা।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us