শিরোনাম

ট্যাক্সিচালক মুহাম্মাদ এর অন্যরকম দান

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : রবিবার, নভেম্বর ২৭, ২০২২ ২:০৭:২২ অপরাহ্ণ

মক্কার রাস্তায় ট্যাক্সি চালিয়ে আয় রোজগার করে মুহাম্মাদ। ট্যাক্সিচালক হলেও তার মনের ইচ্ছা—সে একদিন অনেক ধনী হবে, পরিবারের খরচ চালানোর পাশাপাশি বেশি বেশি দান-সদাকাহ করবে। এই ইচ্ছে পূরণ করতে গিয়ে তাকে অনেক বেশি পরিশ্রম করতে হতো।
তবে সে এই ইচ্ছেটা নিজের ভেতর বেশিদিন রাখল না। মুহাম্মাদ নিয়ত করলো, ধনী না হয়েই আল্লাহর দান-সদাকাহ করবে। তবে তার যেহেুত সম্পদ নেই তাই সে আল্লাহর রাস্তায় সদকাহর করার একটি অন্যরকম উপায় বের করল। মুহাম্মাদ মনে মনে ঠিক করল সে আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য প্রতি মাসে একটি দিন যাত্রীদের কাছ থেকে কোনো ভাড়া নেবে না।
উল্লেখ্য, মক্কার বেশিরভাগ যাত্রীই উমরাহকারী। সে উমরাহকারীদের খেদমতের উদ্দেশ্যেই এই পথটি বেঁছে নেয়। এতে আল্লাহর মেহমানদের মেহমানদারী করাও হবে আবার সদকাহর সওয়াবও পাওয়া যাবে।
একদিন ফ্রি রাইডের সময়, সে মক্কা থেকে জেদ্দা বিমানবন্দরের একজন যাত্রী পেল। জেদ্দা বিমানবন্দর ছিল বেশ দূরে, এটি তার জন্য খুব লাভজনক ট্রিপ হলেও এই ট্রিপটি তার সদকাহর দিনে পড়ে গেছে। তাই সে আজকে যাত্রীর কাছ থেকে কোনো ভাড়া নিবে না। গাড়ি থেকে নামার সময় ফ্রি রাইডের কথা শুনে যাত্রী এত খুশি হলো যে, সে বিশ্বাসই করতে পারছিল না এত দূরে কেউ ফ্রি রাইড দেয়!
বিমানবন্দর থেকে ফিরতি ট্রিপে সে এক আফ্রিকান দম্পতিকে যাত্রী হিসেবে পেল।
এই দম্পতির বেশ-ভূষা দেখে উমরাহকারী মনে হচ্ছে না। কেননা তারা ইহরামের পোশাক পরে আসেনি।
মুহাম্মাদ তাদেরকে গাড়িতে তুলে নিল। গাড়ির মধ্যে বিভিন্ন আলাপচারিতায় সে জানতে পারল যে, এই দম্পতি আসলে অমুসলিম। তারা জেদ্দায় ক্যামেরুন দূতাবাসে কাজ করতে এসেছে। এই এলাকার সভ্যতা ও সংস্কৃতি সম্পর্কে ধারণা নেওয়ার জন্য দূতাবাসের দায়িত্ব গ্রহণের আগে তারা পুরো শহরটি ঘুরে দেখতে চায়। তাই আগামী তিনদিনের জন্য তাদের একটি হোটেল লাগবে। তারা একটি ভালো হোটেল খুঁজে দেওয়ার জন্য মুহাম্মাদকে অনুরোধ করল।
মুহাম্মাদের পরিবার কিছুদিনের জন্য বাড়িতে ছিল না। তাই সে তাদেরকে নিজের বাড়িতে থাকার আমন্ত্রণ জানাল। তারা বলল, আমরা মুসলিম নই, কিন্তু আমরা ইসলামকে অনেক ভালোবাসি ও সম্মান করি। আমাদের অনেক বন্ধু ও সহকর্মী আছে যারা মুসলিম।
মুহাম্মাদ তাদেরকে আশ্বস্ত করল যে, তোমরা মুসলিম কিংবা অমুসলিম যাই হও না কেন, আমার বাড়িতে তোমরা নির্দ্বিধায় থাকতে পারো।
ক্যামেরুণের এই দম্পতি এখন মুহাম্মাদের বাড়িতে। টিভিতে মসজিদুল হারামের ভিডিও চলছে।
তারা মুহাম্মাদকে বলল, আমরা মসজিদুল হারাম ভিজিট করতে চাই।
মুহাম্মাদ হাসি মুখে তাদের উত্তর দিল, সেখানে অমুসলিমরা যেতে পারে না। তবে ইনশাআল্লাহ একদিন তোমরা যাবে আর আমি নিজেই তোমাদের নিয়ে যাব।
ঐ দম্পতি মুহাম্মাদকে বলল, আমরা ইসলাম সম্পর্কে খুব কমই জানি। তুমি আমাদেরকে ইসলাম সম্পর্কে জানাও।
তাদের একথা শুনে মুহাম্মাদ তাদেরকে একজন ইমামের বাড়িতে নিয়ে গেল।
ইমামের বাড়িতে একটি ইসলামি তালিম চলছিল। বেশ আশ্চর্যজনকভাবে তারা সেখানে উম্মুল কুরা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রের সাক্ষাত পেল, যে ছিল ক্যামেরুণের অধিবাসি। এমনকি এই ছাত্র ও ঐ দম্পতির আঞ্চলিক ভাষাও একই ছিল—তারা আঞ্চলিক ভাষায় আলাপচারিতা শুরু করল।
নিজ এলাকার, নিজ ভাষার মানুষের কাছে কোন কিছু জানতে পারলে সেটা বেশি বিশ্বস্ত হয়। ঐ দম্পতি ছাত্রটির কাছে ইসলাম ও তাওহীদ সম্পর্কে বিস্তারিত শুনলো। ইসলামের প্রতি গভীর অনুরাগ আর নিজ দেশের নিজ ভাষার মানুষের নিকট ইসলাম সম্পর্কে শুনে তাদের মনে ইসলাম একটি বিশেষ জায়গা করে নিল।
আলহামদুলিল্লাহ তারা আর অপেক্ষা করল না। ঐ রাতেই তারা ইসলাম গ্রহণ করল।
মুহাম্মাদের কাছে তারা বায়না ধরল—তাদের প্রথম সালাতটা তারা মসজিদুল হারামেই পড়তে চায়। মুহাম্মাদের কথাই সত্যি হলো; সে তাদের বলেছিল, ‘ইনশাআল্লাহ একদিন তোমরা যাবে আর আমি নিজেই তোমাদের সেখানে নিয়ে যাব’!
আমাদের ট্যাক্সিচালক মুহাম্মাদের গল্প এখানেই শেষ নয়…
আফ্রিকান দম্পতি ইসলাম গ্রহণের এক বছর পর মুহাম্মাদকে আরেকটি সুখবর জানাল। সেটি হচ্ছে—তাদের গোত্রের সর্দার ও গোত্রের সবাই তাদের দাওয়াতে ইসলাম কবুল করেছে। যদিও প্রথম প্রথম ইসলাম সম্পর্কে তাদেরকে বোঝাতে খুব কষ্ট করতে হয়েছে।
আফ্রিকান দম্পতি মুহাম্মাদকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলল, ‘জাযাকাল্লাহু খায়রান ভাই তোমাকে, তুমি সেদিন আমাদেরকে এয়াপোর্ট থেকে নিয়ে যাওনি বরং তুমি আমাদের, আমাদের পরিবারকে এবং আমাদের পুরো গোত্রকে শিরক থেকে তাওহীদের দিকে নিয়ে গিয়েছ’।
আমাদের গল্পের নায়ক মুহাম্মাদ কিছুদিনের মধ্যেই আল্লাহর ডাকে সাড়া দেয়। রহিমাহুল্লাহু তা‘আলা।
নিশ্চয় মুহাম্মাদ আল্লাহর রাস্তায় দান-সদকাহর যে স্পৃহা ও আকাঙ্ক্ষা পোষণ করেছিল তার চেয়ে বহু উত্তম ও বহুগুণ প্রতিদানসহকারে আল্লাহ তাঁর নিকট থেকে তা কবুল করে নিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ

মুন্সীগঞ্জ শহরের মানিকপুরে অগ্নিকাণ্ডে একটি বসতঘর পুড়ে ছাই
ব্রাজিল এবার আটলান্টিক মহাসাগরে ডুবিয়ে দিলো নিজেদেরই একটি বিমানবাহী রণতরী
আইএমএফ-এর শর্ত ‘কল্পনার বাইরে’ বলে আখ্যা দিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ
ইউক্রেনকে এবার নতুন ধরনের জিএলএসডিবি বোমা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
যুক্তরাষ্ট্র কেনো চীনের বেলুনটিকে ভূপাতিত করতে পারছেন না
সবচেয়ে ধ্বংসাত্মক পরমাণু শক্তি’র মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের উস্কানিমূলক সামরিক তৎপরতা জবাব দেবে, উত্তর ক...
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরমাণু কেন্দ্রগুলোর উপর নজরদারির জন্য গুপ্তচর বেলুন ব্যবহার করছে চীন
আঙ্কারা যদি দু’টি ইউরোপীয় দেশের ন্যাটো জোটে অন্তর্ভুক্তির বিরোধিতা করে তাহলে তুরস্কের এফ-১৬ জঙ্গিবিম...
Spread the love
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us