শিরোনাম

নামিবিয়ায় গণহত্যার জন্য জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস এর দায় স্বীকার

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শনিবার, মে ২৯, ২০২১ ৪:৫৬:৪৬ অপরাহ্ণ
নামিবিয়ায় গণহত্যার জন্য জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস এর দায় স্বীকার
নামিবিয়ায় গণহত্যার জন্য জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস এর দায় স্বীকার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক মো  গোলাম মোস্তফা-মোস্তাক : দীর্ঘদিন দেন-দরবারের পর শুক্রবার ২৮ মে ২০২১ তারিখে জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস এক বিবৃতিতে নামিবিয়ায় গণহত্যার আনুষ্ঠানিকভাবে দায় স্বীকার করে নেন।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “জার্মানি তাদের ঐতিহাসিক এবং নৈতিক দায় স্বীকার করছে এবং নামিবিয়ার জনগণ এবং অপরাধের শিকার মানুষদের উত্তরসূরিদের কাছে ক্ষমা চাইছে।“ ঐ ঘটনার ক্ষতিপূরণ হিসাবে ১১০ কোটি ইউরো (১৩৪ কোটি ডলার) দিতে রাজী হয়েছে জার্মানি। এই টাকা নামিবিয়ার শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং অন্যান্য অবকাঠামো উন্নয়নে খরচ করা হবে।

তবে জার্মানি প্রথম কোনো সাবেক ঔপনিবেশিক শক্তি যারা তাদের অতীত অপরাধ এবং তার ক্ষতিপূরণ নিয়ে আপস মীমাংসা করলো। ১৮৯৪ থেকে ১৯১৫ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ-পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নামিবিয়া জার্মান ঔপনিবেশিক শাসনে ছিল।

১৯০৪ সাল থেকে ১৯০৪ সাল পর্যন্ত নামিবিয়ায় যে গণহত্যা চালানো হয়, তাকে অনেক ঐতিহাসিক বিংশ শতাব্দীর ‘বিস্মৃত গণহত্যা‘ বলে বর্ণনা করেছেন। হত্যাকাণ্ড শুরু হয়েছিল ১৯০৪ সালে যখন হেরেরো এবং নামা উপজাতি তাদের জমি এবং গবাদিপশু দখলের বিরুদ্ধে জার্মান ঔপনিবেশিক শাসকদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ শুরু করে। সে সময় নামিবিয়ায় জার্মানি সেনাবাহিনীর প্রধান ছিলেন লোথার ফন ট্রোথা। তিনি ঐ দুই উপজাতিকে নির্মূল করে দেওয়ার নির্দেশ জারি করেন।

তাদের বাড়ি-ঘর জায়গা থেকে উচ্ছেদ করে জোর করে দলে দলে মরু অঞ্চলে নির্বাসনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। কেউ যখনই তাদের জায়গা জমি বা বাড়িতে ফিরতে চেয়েছে, তখনই তাদের ধরে হয় হত্যা করা হয়েছে না হয় বন্দি শিবিরে ঢোকানো হয়েছে। সে সময় লক্ষাধিক মানুষকে হত্যা করে প্রায় নিশ্চিহ্ন করেছিল আদিবাসী এই দুই জনগোষ্ঠী।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us