শিরোনাম

নারীদের যে কোন রোগেই ‘স্তন’ পরীক্ষা করেন বাংলাদেশি চিকিৎসক!

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : মঙ্গলবার, আগস্ট ২৪, ২০২১ ১০:৪৫:৪৬ অপরাহ্ণ

নিয়ইয়র্কে বসবাসরত বাংলাদেশি চিকিৎসক ডাক্তার ফেরদৌস খন্দকারের বি’রু’দ্ধে যৌ’ন হ’য়রা’নির অভি’যোগে মা’মলা দায়ের করেছেন পাঁচ নারী। এদের মধ্যে চার জন বাংলাদেশি। অভি’যোগ উঠেছে, বিভিন্ন সময়ে চিকিৎসার নামে রোগীদের যৌ’ন নি’র্যা’ত’ন করেছেন ফেরদৌস খন্দকার। ১৪ বছরের কম বয়সী মেয়েদের অ’যৌ’ক্তিক স্ত’ন পরীক্ষার নামে শ্লী’লতাহা’নি করেছেন তিনি। পরীক্ষার নামে শ্লী’লতাহা’নির ঘটনা প্রায় ২০ বছরে ধরে চালিয়ে আসছেন তিনি।

দুই দশকব্যাপী এ ঘটনাগুলো তিনি অ’কারণে তাদের স্ত’ন স্প’র্শ করেছিল। এমন কি যখন তারা গ’লা ব্যা’থার মতো ল’ক্ষণগুলির জন্য নিয়মিত তার কাছে যেতেন। কিছু ক্ষেত্রে তিনি তাদের আংশিক কাপ’ড় খুলতেও নির্দেশ দিয়েছিলেন। এ জন্য ফেরদৌস খন্দকারকে ‘একজন সি’রিয়া’ল যৌ’ন শি’কা’রী’ বলে অভি’যোগপত্রে উল্লেখ করেন। এ মাম’লার ৫ নারীর আইনজীবী সুসান করুমিলার বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি যে ফেরদৌস খন্দকার তার এ কর্মকা’ণ্ডের জন্য সারাজীবন অনুশো’চনা করবেন। কারণ, তার মতো লোকের বি’রু’দ্ধে কথা বলার জন্য বিশেষ সাহস দরকার।

তিনি মনে করেছিলেন মান’হা’নি মা’মলা করলে হয়’রানি’র শি’কার নারীদের চু’প ক’রিয়ে দেওয়া যাবে। কিন্তু হিতে বিপরীত হয়েছে। অ’বমান’নার শি’কার নারীরা এখন এ গিয়ে এসেছেন। এ মাম’লার পর ফেরদৌস খন্দকার ও তার অ্যাটর্নি কারো কাছে থেকে কোনো মন্ত’ব্য পাওয়া যায়নি।’

ফেরদৌস খন্দকারের এ ধরনের আ’চর’ণের বি’রু’দ্ধে প্রতি’বাদ জানাতে বেশ কয়েকজন ভু’ক্তভো’গী গত বছর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘটনা প্রকাশ করায় ফেরদৌস খন্দকার তিন জনের বি’রু’দ্ধে ১০ লাখ ডলারের মা’নহা’নির মা’মলা করেছিলেন। সাম্প্রতি আ’দালত মাম’লাটি খা’রিজ করে দেন এবং বিবা’দির আইনজীবীর পারিশ্র’মিক প’রিশো’ধ করার জন্য ফেরদৌস খন্দকারকে নির্দেশ দেন। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে তার বিরু’দ্ধে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন ভুক্তভোগীদের আইনজীবী সুসান ক্রুমিলার।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us