শিরোনাম

নোয়াখালীতে মাদ্রাসার ১০ ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, আগস্ট ১০, ২০২২ ১২:১৮:০২ পূর্বাহ্ণ
নোয়াখালীতে মাদ্রাসার ১০ ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ
নোয়াখালীতে মাদ্রাসার ১০ ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ

নোয়াখালীর সেনবাগের ৯নং নবীপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের তা’লীমুল কুরআন মাদ্রাসার মুতামিম মাওলানা আবদুল ফাত্তাহ’র বিরুদ্ধে মাদ্রাসার  ১০ জন আবাসিক ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ উঠেছে।

বিষয়টি জানাজানি হলে অভিভাবকদের চাপের মুখে অভিযুক্ত শিক্ষককে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। তবে স্থানীয়দের অভিযোগ, মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সহযোগিতায় অভিযুক্ত শিক্ষককে পালিয়ে যাবার সুযোগ করে দেয়া হয়। গত শনিবার সকালে এ ঘটনায় ভুক্তভোগী পরিবারগুলো নিয়ে তা’লীমুল কুরআন মাদ্রাসায় একটি সালিশী বৈঠক বসে।

বৈঠকে শিক্ষকের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হয়। ওই বৈঠকে ২০-৩০ জন অভিভাবক উপস্থিত ছিলেন।  তবে অভিযুক্ত শিক্ষক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না। ওই বৈঠকের খবর পেয়ে গত দুইদিন অভিযুক্ত শিক্ষক আর মাদ্রাসায় আসেননি।

ভুক্তভোগী অভিভাবক ও স্থানীয়রা জানায়, তা’লীমুল কুরআন মাদ্রাসার আবাসিক হলের ৮-১০ জন ছাত্রকে বিভিন্ন সময়ে মাদ্রাসার মুতামিম আবদুল ফাত্তাহ রাতে ঘুম থেকে তুলে নিয়ে যেতো। ওই সময় মোবাইল ফোন আনা-নেয়াসহ বিভিন্ন অজুহাতে তার অফিস, শয়ণ কক্ষে ডেকে নিয়ে অনৈতিক কর্মকাণ্ড বলাৎকারের ঘটনা ঘটায়।

এরপর বলাৎকারের শিকার মাদ্রাসার ছাত্ররা বাড়ি গিয়ে আর মাদ্রাসায় আসতে না চাওয়ায় পরিবারের লোকজন তাদেরকে বিভিন্নভাবে বুঝিয়ে মাদ্রাসায় পাঠাতে না পেরে মারধর করলে বিষয়টি জানাজানি হয়।
অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মাদ্রাসার সভাপতি ছারওয়ার আলম বলেন, মাদ্রাসার শিক্ষকদের গ্রুপিংয়ের কারণে ওই অভিযোগটি উত্থাপিত হয়েছে। বিনা দোষে কেন প্রতিষ্ঠান প্রধানকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তিনি কোনো উত্তর না দিয়ে বলেন, অত্র মাদ্রাসার আবাসিক বিভাগ অচিরেই বন্ধ করে দেয়া হবে।

এ বিষয়ে মাদ্রাসার চেয়ারম্যান আলহাজ হাফেজ মুহাম্মদ তৈয়ব বলেন, অভিভাবকদের পক্ষ থেকে অত্র মাদ্রাসা প্রধানের বিরুদ্ধে অনৈতিক কর্মকাণ্ডের অভিযোগ পেয়ে অভিযুক্ত শিক্ষককে তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় মাদ্রাসার পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী বলেন, তিনি বিষয়টি শুনেছেন।  তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো অভিভাবক থানায় লিখিত কোনো অভিযোগ দেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Spread the love
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us