শিরোনাম

পরকীয়া প্রেমের প্রধান কয়েকটি কারণ এবং ভয়াবহ শাস্তিঃ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, জুন ১৯, ২০২০ ১:০০:১৩ অপরাহ্ণ
পরকীয়া প্রেমের প্রধান কয়েকটি কারণ এবং ভয়াবহ শাস্তিঃ
পরকীয়া প্রেমের প্রধান কয়েকটি কারণ এবং ভয়াবহ শাস্তিঃ

পরকীয়া প্রেমের প্রধান কয়েকটি কারণ এবং ভয়াবহ শাস্তিঃ

(১) স্বামী বিদেশ থাকাঃ স্ত্রীর অধিকার নষ্ট করে কোন স্বামী যদি দীর্ঘদিন ধরে বিদেশে থাকে এবং এ কারণে কোন স্ত্রী জিনা-ব্যভিচারে লিপ্ত হয়, তাহলে সেই ব্যভিচারিণী স্ত্রীর জন্য তার স্বামীও দায়ী থাকবে। স্ত্রীর অধিকার লংঘন হয়, এমন কোন সিদ্ধান্ত নেওয়ার পূর্বে অবশ্যই স্ত্রীর অনুমতি নিয়ে নিতে হবে। অধিকাংশ স্ত্রীই হয়তো মুখ ফুটে কিছু বলেনা, তারপরেও খারাপ শোনা গেলেও এ কথাই সত্যি যে, অনেক প্রবাসীর স্ত্রী আসলে পরপুরুষের প্রতি আসক্ত বা পরকীয়ায় লিপ্ত। তাই বাস্তবতার কথা চিন্তা করে সঠিক সিদ্ধান্ত দিন। ঘর আগুনে পুড়ে গেলে পরে আফসোস আর আফসোস করে কোন লাভ নেই। জীবন একটাই, যা করার ভেবে চিন্তেই করুন। আপনার ভুল সিদ্ধান্ত ও অবহেলার কারণে যেমন আপনার স্ত্রীর চরিত্র নষ্ট হবে, তার সাথে সাথে আপনার ও আপনার সন্তানদের ভবিষ্যতও নষ্ট হবে, এমন ঘটনা বহু ঘটছে।

(২) অহংকারী ও অবাধ্য স্ত্রীঃ বিয়ের পরে অনেক স্ত্রী নিজের অহংকারের কারণে স্বামীর আনুগত্য থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয় এবং স্বামীর সাথে ঘৃণা ও বিদ্বেষ পোষণ করা আরম্ভ করে। যেই ভালোবাসা ও শান্তি নিজ ঘরে পাওয়ার কথা সেটা থেকে বঞ্চিত হয়, তখন অনেক পুরুষেরা বাইরে সেটা তালাশ করে বেড়ায়।

(৩) অত্যাচারী স্বামীঃ অনেক পুরুষ আছে যারা স্ত্রীদেরকে মানুষই মনে করেনা, স্ত্রীর উপরে শারিরীক ও মানসিকভাবে অত্যাচার ও নির্যাতন করে আনন্দ পায়। এরকম একটা পুরুষকে ভালোবাসা একটা মেয়ের জন্য উত্তপ্ত আগুনের কয়লা দিয়ে বানানো পোশাক পড়ার মতোই কঠিন। এরকম বহু নারী একটা সময় নারীলোভী অন্য পুরুষের পাল্লায় গিয়ে পড়ে। কত যে নারী এইরকম এক শয়তান থেকে বাঁচার জন্য আরো বড় শয়তানের পাল্লায় পড়ে দুনিয়া ও আখেরাত বর্বাদ করছে।

(৪) নারীদের পর্দাহীনতাঃ নারীদের বেপর্দা চলাফেরা করা, গায়ের মাহরাম নারী ও পুরুষের মাঝে অবাধ মেলামেশা অবৈধ সম্পর্কের জন্য সবচাইতে বেশি দায়ী। একটা ফতোয়াতে পড়েছিলাম, এক নারী জিজ্ঞেস করছে, তার খালাতো বোনের স্বামীর সাথে সে উঠা-বসা করতো। সেই লোকটা তার প্রেমে পড়ে তার কাজিনকে তালাক দিয়েছে। এখন সে কি তার খালাতো বোনের প্রাক্তন স্বামীকে বিয়ে করতে পারবে কিনা? আরেক মেয়ে ফতোয়া জানতে চেয়েছিলো, সে নিজে অনেক ধার্মিক এবং তার পরিবারও অনেক ধার্মিক। একবার ইন্টারনেটে পরিচয় এমন তার চাইতে বয়সে ছোট একটা ছেলেকে আত্যহত্যার সিদ্ধান্ত থেকে বুঝিয়ে সে সুস্থ জীবনে ফিরিয়ে আনে। ছেলেটা তার বাসায় আসে তাকে ধন্যবাদ দেওয়ার জন্য, আর এইভাবে শয়তান সুযোগ নিয়ে তাদেরকে পথভ্রষ্ট করে, তাদেরকে জিনাতে লিপ্ত করে। এর ফলে সে গর্ভবতী হয়। তার পরিবার খুব ধার্মিক ও অভিজাত ফ্যামিলির, পরিবারে সম্মান রক্ষার্থে সে গর্ভপাত করতে পারবে কিনা?

এইরকম অনেক সত্যি ঘটনা আছে, বেপর্দা নারীদের সাথে মেশা ও গায়ের মাহরাম নারী ও পুরুষের ফ্রী মিক্সিং, কিভাবে জিনা-ব্যভিচার ও পরকীয়ার রাস্তাকে খুব সহজ করে দিয়েছে। বর্তমানে কলেজ ইউনিভার্সিটিগুলোতে জেনা ও অবৈধ সম্পর্কে ব্যপকতার প্রধান কারণ হচ্ছে নারী ও পুরুষের সহশিক্ষা, সহাবস্থান ও বেশিরভাগ নারীদের বেপর্দা, অর্ধনগ্ন হয়ে চলাফেরা।
কারণ যাই হোক না কেন, আল্লাহর সাথে শিরক করার পর সবচাইতে বড় পাপ হচ্ছেঃ জিনা।

(৫) নিজ ঘরে স্বামী/স্ত্রী রেখে অন্য কারো সাথে জেনা করার শাস্তিঃ নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মিরাজের রাত্রিতে একদল লোকের কাছে উপস্থিত হয়ে দেখতে পেলেন তাদের সামনে একটি পাত্রে গোশত রান্না করে রাখা হয়েছে। অদূরেই অন্য একটি পাত্রে রয়েছে পঁচা দুর্গন্ধযুক্ত কাঁচা গোশত। লোকদেরকে রান্না করে রাখা গোশত থেকে বিরত রেখে পঁচা এবং দুর্গন্ধযুক্ত, কাঁচা গোশত খেতে বাধ্য করা হচ্ছে। তারা চিৎকার করছে এবং একান্ত অনিচ্ছা সত্ত্বেও তা থেকে ভক্ষণ করছে। নবী সাল্লাল্লাহু আ’লাইহি ওয়া সাল্লাম জিবরাইলকে জিজ্ঞেস করলেন, এরা কোন শ্রেণীর লোক? জিবরাইল বললেন, “এরা আপনার উম্মতের ঐ সমস্ত পুরুষ, যারা নিজেদের ঘরে পবিত্র এবং হালাল স্ত্রী থাকা সত্ত্বেও অপবিত্র এবং খারাপ মহিলাদের সাথে রাত কাটাতো।” আল-খুতাবুল মিম্বারিয়া, শায়খ সালিহ আল-ফাওজান।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর