শিরোনাম

পরশুরামে আইপিএল জুয়া ঠেকাতে ডিশ সংযোগ বন্ধের উদ্যোগ নিয়েছে মেয়র সাজেল চৌধুরী

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, এপ্রিল ১৪, ২০২১ ১১:৩৮:৫০ পূর্বাহ্ণ
পরশুরামে আইপিএল জুয়া ঠেকাতে ডিশ সংযোগ বন্ধের উদ্যোগ নিয়েছে মেয়র সাজেল চৌধুরী
পরশুরামে আইপিএল জুয়া ঠেকাতে ডিশ সংযোগ বন্ধের উদ্যোগ নিয়েছে মেয়র সাজেল চৌধুরী

পেয়ার আহাম্মদ চৌধুরীঃ- ফেনীর পরশুরামে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের খেলাকে কেন্দ্র করে চলা জুয়া থামানোর লক্ষ্যে আইপিএলের ম্যাচ চলাকালীন সময় স্থানীয় কেবল লাইনের সংযোগ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৩এপ্রিল) বিকেল থেকে মাইকিং এর মাধ্যমে এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেল থেকে পরশুরাম উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করতে দেখা গেছে। উপজেলার স্কুল শিক্ষার্থী,পরিবহণ শ্রমিক,চাকুরী জীবি,দিনমজুর থেকে শুরু করে বিভিন্ন পেশার লোকজন আইপিএলের জুয়ায় আশংকাজনক ভাবে আসক্তি হয়ে পড়ছে।

পরশুরাম পৌরসভার মেয়র নিজাম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী সাজেল সত্যতা নিশ্চিত করে জানান আইপিএলকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি পরশুরামের বেশ কয়েকটি স্থানে আইপিএল-কেন্দ্রিক জুয়ায় অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া গেছে।

তরুন সমাজ ও স্কুল শিক্ষার্থীদেরকে জুয়ার আসক্তি বেড়ে যাওয়ায় খেলা চলাকালীন সময়ে কেবল টিভি সংযোগ বন্ধ রাখার এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তিনি জানান মঙ্গলবার বিকেলে থেকে মাইকিং করা সহ ক্যাবল টিভি পরিচালনা প্রতিষ্ঠানকে পৌরসভার পক্ষ থেকে সংযোগ বন্ধ রাখতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আইপিএলের খেলাকে কেন্দ্র করে পরশুরাম উপজেলার তরুণদের মধ্যে জুয়া খেলার প্রবণতা কমানোর লক্ষ্যেই এই উদ্যোগ নেয়া স্থানীয় অভিভাবকরা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন ।

পরশুরাম ডিজিটাল ক্যাবল নেটওয়ার্কের স্বর্তাধিকারী নাছির উদ্দিন রিটু জানান ‘আজ থেকে সন্ধ্যায় খেলা শুরু হওয়ার সময় থেকে যতক্ষণ খেলা শেষ না হয় ততক্ষণ পুরো এলাকার কেবল সংযোগ বন্ধ রাখা হবে। পরশুরাম বাজার বনিক সমিতির সভাপতি আবু তালেব মজুমদার (বড় তালেব )জানান ‘আইপিএল চলাকালীন সময় এই এলাকার হাজার হাজার তরুণ, যুবক ব্যবসীরা চায়ের দোকানে জুয়া খেলে।

এই বিষয়ে অনেক পরিবারের পক্ষ থেকে আমাদের কাছে অভিযোগ আসার প্রেক্ষিতেই পৌর মেয়রকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। জানা যায় জুয়াকে কেন্দ্র করে যুবকরা অর্ধেক দামে নিজেদের মোবাইল ফোন, মোটর সাইকেল, ব্যাটারি চালিত যান বিক্রি করেছে।

খেলা চলাকালীন সময়ে কেবল সংযোগ বন্ধ রাখার পাশাপাশি প্রয়োজনে এলাকার ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবার গতিও সীমিত রাখা হবে বলে জানান নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সাজেল। অপরদিকে মাইকিং করে জানানো হয়েছে এই সিদ্বান্ত বাস্তবায়ন হচ্ছে কিনা তা নজরদারির লক্ষ্যে পৌরসভা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একাধিক টিম মাঠে থাকবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us