শিরোনাম

পাবনার কৃতি সন্তান মোঃ শফিকুল ইসলাম অতিরিক্ত অাইজি হিসাবে পদোন্নতি পেলেন।

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : মঙ্গলবার, মে ২৫, ২০২১ ৮:০৪:৩৩ অপরাহ্ণ
পাবনার কৃতি সন্তান মোঃ শফিকুল ইসলাম অতিরিক্ত অাইজি হিসাবে পদোন্নতি পেলেন।
পাবনার কৃতি সন্তান মোঃ শফিকুল ইসলাম অতিরিক্ত অাইজি হিসাবে পদোন্নতি পেলেন।
মোঃ লুৎফর রহমান পাবনা সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি মোঃ শফিকুল ইসলামকে পদায়ন করা হয়েছে। শিল্পাঞ্চল পুলিশ ইউনিট-ঢাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক হিসেবে তাকে পদায়ন করা হয়। সোমবার রাতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ পুলিশ-১ শাখার এক প্রজ্ঞাপন থেকে এ তথ্য জানা যায়।
উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনটি আগের দিন রবিবার জারি হয়। এর আগে বাংলাদেশ পুলিশের বিসিএস (পুলিশ) ক্যাডারের পদোন্নতি পাওয়া চার অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শককে পদায়ন করা হয়েছে।
ইতিপূর্বে তারা উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক থেকে অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক হিসেবে পদন্নোতি পান। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী বরিশাল রেঞ্জের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক মো. শফিকুল ইসলামকে শিল্পাঞ্চল পুলিশ ইউনিট-ঢাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক পদে, এন্টি টেররিজম ইউনিটের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক মোঃ দিদার আহম্মদকে ঢাকা রেলওয়ে পুলিশে অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক, নৌ পুলিশ ইউনিটের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক মোঃ আতিকুল ইসলামকে পুলিশ অধিদপ্তরে অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক, পুলিশ অধিদপ্তরের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক এম খুরশীদ হোসেনকে একই দপ্তরে অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক হিসেবে পদায়ন করা হয়।
বাংলাদেশ পুলিশের অত্যন্ত মেধাবী ও চৌকস অফিসার, বরিশাল রেঞ্জের বর্তমান ডিআইজি, বিশিষ্ট লেখক ও বরেণ্য সামাজিক ব্যক্তিত্ব, রাজশাহীস্থ বৃহত্তর পাবনা সমিতির সাবেক সভাপতি ও বর্তমান উপদেষ্টা, ঢাকাস্থ পাবনা সমিতির সাবেক সহ সভাপতি ও সাবেক আহ্বায়ক, পাবনা ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন এর অন্যতম উপদেষ্টা এবং পাবনার কৃতীসন্তান মোঃ শফিকুল ইসলাম, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার)।
১২-তম বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে বিসিএস পুলিশ ক্যাডারের জন্য নির্বাচিত হওয়া পাবনার এই কৃতীসন্তান বাংলাদশ পুলিশে সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে যোগ দেন।
কর্মজীবনে তিনি শিক্ষানবিস সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে বরিশাল, সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে রাঙামাটি, মেহেরপুর ও খুলনা জেলায়; অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে এপিবিএন বগুড়া, কুড়িগ্রাম ও গাজীপুর জেলায়; পুলিশ সুপার হিসেবে তিনি গোপালগঞ্জ, পঞ্চগড়, গাজীপুর, জয়পুরহাট ও মুন্সিগঞ্জ জেলা, আরএমপির ডেপুটি পুলিশ কমিশনার এবং পুলিশ সদর দফতরে এআইজি (সরবরাহ) ও এআইজি (ইঅ্যান্ডটি) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
পুলিশ সদর দফতরে অতিরিক্ত ডিআইজি আইসিটি অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন হিসেবে এবং ঢাকা রেঞ্জে অতিরিক্ত ডিআইজি প্রশাসন ও ক্রাইম হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বিদেশে তিনি অ্যাংগোলা কসোভোয় জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে (UNAVEM-III & UNMIK) দায়িত্ব পালন করেন। যুক্তরাষ্ট্রের লুইজিয়ানা স্টেট পুলিশ একাডেমি থেকে তিনি উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। ডিআইজি হিসেবে তিনি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)-এর অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরএমপি)-এর কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
মাদক ও সন্ত্রাস-বিরোধী অভিযানে বিশেষ ভূমিকা রেখে তিনি দেশব্যাপী সুনাম কুড়িয়েছেন, মাদক সেবিদের মাদকসেবনের পথ ছেড়ে সুপথে ফিরিয়ে আনতে গ্রহণ করেছেন নানামুখী প্রশংসনীয় উদ্যোগ। ডিআইজি মোঃ শফিকুল ইসলাম কর্মজীবনের পাশাপাশি পাবনার বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সঙ্গে নিবিড়ভাবে জড়িত আছেন। তিনি ‘ঢাকাস্থ পাবনা সমিতি’র সাবেক সহ সভাপতি ও আহ্বায়ক। ‘
রাজশাহীস্থ বৃহত্তর পাবনা সমিতি’র সাবেক সভাপতি ও বর্তমান উপদেষ্টা এবং পাবনা ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন এর অন্যতম উপদেষ্টা তিনি। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নে বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান স্থাপন, রাস্তা-ঘাট ও ব্রিজ-কালভার্ট নির্মাণ করা হয়েছে। “কমিউনিটি পুলিশিং বরিশাল রেঞ্জ” নামক গ্রন্থ রচনা করে তিনি দেশব্যাপী সুনাম কুড়িয়েছেন। মোঃ শফিকুল ইসলাম ১৯৬৫ সালের ৫ জানুয়ারি পাবনা জেলার আটঘরিয়া উপজেলার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।
পিতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত নিবেদিতপ্রাণ প্রধান শিক্ষক এবং মাতা মোছাঃ নূর জাহান বেগম। মোঃ শফিকুল ইসলাম আতাইকুলা উচ্চ বিদ্যালয়, পাবনা থেকে এসএসসি এবং সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ, পাবনা থেকে এইচএসসি পাস করেন।
তিনি শেরেবাংলা কৃষি ইনস্টিটিউট (বর্তমানে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়), ঢাকা থেকে সম্মানসহ ডিগ্রি অর্জন করেন এবং সাউথ ইস্ট ইউনিভার্সিটি থেকে এমবিএ কোর্স সম্পন্ন করেন। ছাত্রজীবনের প্রতিটি পরীক্ষায় তিনি প্রথম বিভাগ-শ্রেণি অর্জন করেন।
আমরা পাবনার এই কৃতীসন্তানের দীর্ঘজীবন, কর্মজীবনের সর্বোচ্চ সফলতা ও আমৃত্যু সুস্থতা কামনা করি।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us