শিরোনাম

পাবনার সাঁথিয়া প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ‘ঘরের চাবি’ কেরে নেবে আ.লীগ নেতা

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২২, ২০২১ ১১:১১:০৩ অপরাহ্ণ
পাবনার সাঁথিয়া প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ‘ঘরের চাবি’ কেরে নেবে আ.লীগ নেতা
পাবনার সাঁথিয়া প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ‘ঘরের চাবি’ কেরে নেবে আ.লীগ নেতা

মোঃ লুৎফর রহমান পাবনার সাঁথিায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রতিকৃত বাড়ি প্রাপ্তদের নিকট থেকে চাঁদা নেয়ার অভিযোগ উঠেছে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে।

দাবিকৃত টাকা না দিলে বরাদ্দকৃত বাড়ির চাবি কেড়ে নেয়ার হুমকি দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগী পরিবারের। ইতিমধ্যে মমতাজ বেগম নামে গৃহবধু নিজে একটি লিখিত অভিযোগ দেন ইউএনও অফিসে। অভিযোগের প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পেয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

মুজিবশতবর্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি একটি বাড়ি বরাদ্দ পান সাঁথিয়া উপজেলার করমজা ইউনিয়নের হতদরিদ্র মমতাজ বেগম। ইতোমধ্যে লটারির মাধ্যমে নির্ধারিত মল্লিকপাড়া প্রকল্পের ৫নং বাড়ির চাবি বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে মমতাজকে।

কিন্তু করমজা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধানর সম্পাদক আবু দাউদ নান্নু দরিদ্র মমতাজ বেগমের নিকট সরকারি ভাবে প্রাপ্ত বাড়িটি বাবদ ৫৫ হাজার টাকা দাবী করে। ইতোমধ্যে নান্নুর স্ত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ৫ হাজার টাকা নিয়েছে মমতাজের কাছ থেকে। বাকি ৫০ হাজার টাকা আগামী ৭ দিনের মধ্যে পরিশোধের জন্য হুমকি দেয়া হচ্ছে ।

অসহায় দরিদ্র মমতাজ বেগম গত ১১ এপ্রিল সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট তদন্তপুর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আবেদন করেন। সাঁথিয়া উপজেলার শেষ প্রাপ্ত আর বেড়া উপজেলার শুরু এই ইউনিয়নে সরকারি খাঁস জমিতে পাশাপাশি দুটি স্থানে গৃহহীনদের জন্য প্রায় ৫০টি ঘরনির্মান করে দিচ্ছে সরকার। সারা বাংলাদেশের এই ঘরনির্মান প্রকল্প নিয়ে রয়েছে নানা অভিযোগ।

অনেকেই গোপনে ঘরের জন্য অর্থ দিচ্ছে সুপারিশ কারীদেরবে। সামান্য কিছু আমরা জানতে পেরেছি আর বেশির ভাগ অনিয়ম ধামাচাপা পরে যাচ্ছে ক্ষমতাসীনদের কারনে। এই নারী ঘর বাবদ টাকা চাওয়ার প্রতিবাদ করেছেন। সাহস করে এগিয়ে এসে কথা বলেছেন। তাই এই ধরনের ভালো কাজকে নষ্ট করার সাথে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি স্থানীয়দের।

ভুক্তভোগী মমতাজ বেগম ও তার স্বামী ফজর মন্ডল বলেন, অন্যের জায়গার উপরে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছি। প্রধানমন্ত্রীর আমারে জন্য ঘর দিয়েছে যা লটারির মাধ্যমে পাইছি আমি। ঘরের চাবিও দিয়েছে আমাকে কিন্ত ঘরে উঠার আগে আমার কাছে টাকা চাইছে নেতা।

কিছু টাকা যোগার করে দিয়েছি আর বাকী টাকার জন্য আমাকে বারবার ফোন দিচ্ছে এমনকি বাড়ির উপর আসছিলো। উপায় না পেয়ে পরে অভিযোগ করেছি। এখন আমার কাছে ঘোরিতেছে। নতুন ঘড়ের বিদ্যুৎ সংযোগ লাইন এখনো বসানো হয়নি। তাই ঘড়ের উঠতে পারছিনা। এই অনৈতিক অমানবিক জঘন্যতম কাজের জন্য এলাকাবাসী বেশ ক্ষুব্ধ হয়ে ঘৃনা প্রকাশ করে বলেন, এই ধরনের কাজের সাথে যারাই জড়িত থাকুক তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে।

যাতে সরকারের ভাবমুর্তি নষ্ট না করতে পারে। উক্ত ঘটনার বিষয়ে করমজা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধানর সম্পাদক আবু দাউদ নান্নু বলেন, এটি আমার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র। দীর্ঘদিন রাজনীতি করেছি কখনো কারো সাথে দুই নাম্বারি করিনি।

সামনে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ও দলীয় কাউন্সিল। আমার প্রতিপক্ষ আমাকে ঘায়েল করার জন্য ওই গৃহহীন মহিলাকে দিয়ে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করিয়েছে। এই ঘটনার সঠিক তদন্ত করলে বিষটির প্রকৃত রহস্য বেরিয়ে আসবে বলে মনে করেন। সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জামাল আহম্মেদ বলেন, এই ঘটনার বিষয়ে আমরা একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি।

অভিযোগের আলোকে প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা কিছুটা পাওয়া গেছে। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি। এই বিষয়ে পাবনা জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম ফারুক পিন্স বলেন, দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয় এমন কাজ থেকে দলের সকল নেতাকর্মীকে সতর্ক থাকতে হবে।

প্রধানমন্ত্রীর একটি ভালো কাজকে কেউ প্রশ্নবিদ্ধ করবে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন করবে এমন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। এই ঘটনার সঠিক তদন্ত করে অভিযোগ প্রমানিত হলে তার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us