শিরোনাম

পোর্টল্যান্ড শহরে সেনা মোতায়েন করলো ট্রাম্প প্রশাসন

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, জুলাই ২৩, ২০২০ ৭:৩০:১৯ অপরাহ্ণ
পোর্টল্যান্ড শহরে সেনা মোতায়েন করলো ট্রাম্প প্রশাসন
পোর্টল্যান্ড শহরে সেনা মোতায়েন করলো ট্রাম্প প্রশাসন

যুক্তরাষ্ট্রের ওরিগন অঙ্গরাজ্যের পোর্টল্যান্ড শহরে পুলিশবিরোধী বিক্ষোভ ঠেকাতে সেনা মোতায়েন করেছে ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকার। মঙ্গলবার (২১ জুলাই) মার্কিন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের শুল্ক ও সীমান্ত সুরক্ষাবিষয়ক শাখার (সিবিপি) পক্ষ থেকে জানানো হয়, তাদের আধা সামরিক ধাঁচের তিনটি ইউনিটের সেনাদেরকে মোতায়েন করা হয়েছে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে বর্ণ-বৈষম্য ও পুলিশি সহিংসতার বিরুদ্ধে প্রায় দুই মাস ধরে বিক্ষোভ চলছে। এ অবস্থায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শিকাগোসহ দেশটির বড় বড় শহর ও অঙ্গরাজ্যগুলোতে ফেডারেল পুলিশ ও সেনা পাঠানোর পরিকল্পনা ঘোষণা করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার দৃষ্টিতে বিক্ষোভকারীরা ‘সন্ত্রাসী’ ও ‘লুটেরা’! বিক্ষুব্ধরা দাস ব্যবসার সঙ্গে জড়িত ও অন্য অনেক ঐতিহাসিক ব্যক্তির মূর্তি ভাঙ্গতে থাকায় ট্রাম্প তাদেরকে দশ বছরের কারাদণ্ডের হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন। সম্প্রতি তিনি পোর্টল্যান্ড শহরের বিক্ষোভ দমনের জন্য সেখানে ফেডারেল বাহিনী পাঠানোর আদেশ দেন।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) সিবিপি থেকে রয়টার্সকে পাঠানো ইমেইলে বলা হয়, ‘আমাদের স্পেশাল অপারেশন গ্রুপের এজেন্ট ও কর্মকর্তাদেরকে মোতায়েন করা হয়েছে।’ তবে মোতায়েনকৃত সেনাদের সংখ্যা কত তা জানানো হয়নি। সিবিপি মূলত স্থলসীমায় এবং বিভিন্ন চেকপোস্টে টহল দেওয়ার কাজ করে থাকে। যে তিন ইউনিট থেকে সিবিপি পোর্টল্যান্ডে সেনা পাঠিয়েছে সেগুলো হলো-বর্ডার পেট্রোল ট্যাকটিক্যাল ইউনিট, বর্ডার পেট্রোল সার্চ, ট্রমা এন্ড রেসকিউ এবং স্পেশাল রেসপন্স টিম।

অনলাইনে প্রকাশিত বেশ কিছু ভিডিওতে দেখা গেছে, সাদা পোশাকের কর্মকর্তারা শক্তি প্রয়োগ করছেন এবং গাড়িতে করে গ্রেফতারকৃত বিক্ষোভকারীদেরকে নিয়ে যাচ্ছেন। ওই গাড়িগুলো কাদের সেটাও লেখা নেই। মানবাধিকার আইনজীবীরা মনে করছেন, গ্রেফতারের এ ধরনের কৌশলগুলো বিক্ষোভকারীদের মুক্তভাবে মত প্রকাশের অধিকার লঙ্ঘন করে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর