শিরোনাম

পৌর কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, আগস্ট ২৫, ২০২১ ৯:৫৫:২৫ অপরাহ্ণ

টাঙ্গাইল পৌরসভার ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আতিকুর রহমান মোর্শেদের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় স্ত্রী সৈয়দা আমেনা পিংকি হত্যার বিচার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। বুধবার দুপুুরে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়ামে এ সংবাদ করেন পিংকির বাবা সৈয়দ শরিফ উদ্দিন।

লিখিত বক্তব্যে সৈয়দ শরিফ উদ্দিন বলেন, ২০১২ সালে আতিকুর রহমান মোর্শেদ আমার মেয়েকে তার লোকজন দিয়ে জোর করে অপহরণ করে। পরে ওই ওয়ার্ডের মোস্তফা কাজীর মাধ্যমে তাকে বিয়ে করে। পরবর্তীতে তাদের ঘরে এক কন্যা সন্তানের জন্ম করে। তার নাম দেয়া হয় মায়েশা। মায়েশার বয়স এখন ৬ বছর। কিন্তু আমার মেয়েকে মোর্শেদ ও তার স্ত্রীরা এক মুহূর্তের জন্যও শান্তিতে থাকতে দেয়নি। তাকে মারধর ও নির্যাতন করা হতো। সেই সাথে তাকে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলার হুমকিও দেয়া হতো। আমরা ভয়ে কিছু করতে পারি নি। ২০১৭ সালের ২৬ জানুয়ারি মোর্শেদের সহযোগী মুন্সি তারেক পটনের বাসায় রাতের দাওয়াত আছে বলে পিংকিকে নিয়ে যায়। এরপর আমার মেয়েকে নির্মম নির্যাতন করে হত্যা করে এবং তার লাশ গুম করে। এর পরেও মোর্শেদের ভয়ে আমরা কিছু করতে পারেনি।

তিনি আরো বলেন, সম্প্রতি মোর্শেদকে পুলিশ গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর আমি মঙ্গলবার বাদী হয়ে মোর্শেদসহ ৯ জনের নাম উল্লেখ করে আদালতে মামলা দায়ের করি। আমি আমার মেয়ের হত্যাকারী মোর্শেদের বিচার চাই।

মঙ্গলবার সৈয়দা আমেনা পিংকির বাবা সৈয়দ শরিফ উদ্দিন বাদী হয়ে মোর্শেদসহ ৯ জনের নাম উল্লেখ করে আদালতে মামলা দায়ের করেন। এছাড়া মামলায় অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জনকে আসামি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার কাউন্সিলর আতিকুর রহমান মোর্শেদকে গ্রেফতার করা করে। পরে তার বিশ্বাস বেতকা এলাকার বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে দুইটি বিদেশি পিস্তল, ছয় রাউন্ড গুলি ও দুটি ম্যাগজিন উদ্ধার করে পুলিশ। গত শুক্রবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মোর্শেদকে তিন দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। গত সোমবার তিন দিনের রিমান্ড শেষে মোর্শেদকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us