শিরোনাম

ফেনীর সোনাগাজীতে স্বর্ণ দোকানে দিনে দুপুরে ফিল্ম স্টাইলে ডাকাতি, আহত ৪

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : রবিবার, অক্টোবর ৩০, ২০২২ ১১:১৫:৪৫ অপরাহ্ণ

পেয়ার আহাম্মদ চৌধুরী, ফেনী জেলা প্রতিনিধি:
ফেনীর সোনাগাজীতে দিনে দুপুরে ফিল্ম স্টাইলে বোমা ফাটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টির পর মালিককে কুপিয়ে এক স্বর্ণ দোকান থেকে স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে গেছে মুখোশধারী ডাকাতেরা।

রবিবার ৩০ (অক্টোবর) বেলা আড়াইটার দিকে সোনাগাজী উপজেলার জমাদার বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, রবিবার ছয়-সাতজনের একটি ডাকাত দল দুটি মোটরসাইকেল নিয়ে জমাদার বাজারের অর্জুন চন্দ্র বাদুরীর দোকানের সামনে আসে। এ সময় সড়কে বেশ কয়েকটি হাত বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে তারা স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। পরে তারা অর্জুন চন্দ্রকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে দোকানে থাকা স্বর্ণালংকার লুট করে। বাধা দেওয়ায় দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে অর্জুনের মাথায় ও হাতে আঘাত করে দোকানে ভাঙচুর চালায়। চলে যাওয়ার সময় ডাকাতেরা আবারও বোমা ফাটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে মোটারসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়। ডাকাতেরা ‘অর্জুন জুয়েলার্স’ নামের ওই দোকানের প্রায় ৫০ লাখ টাকার স্বর্ণালংকার নিয়ে গেছে বলে দাবি করেছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। ঘটনার সময় ডাকাতদের অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত দোকানমালিক অর্জুন চন্দ্র বাদুরীকে প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফেনীর ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। ঘটনার সময় বোমা বিস্ফোরণে বাজারের পথচারী লেদু মিয়াসহ চারজন আহত হন। বাকিদের নাম জানা যায়নি।

সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক মো. সাদেকুল করিম বলেন, অর্জুন চন্দ্রের মাথায়, চোয়ালে ও হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাত লেগেছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে দ্রুত ফেনীর ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ভুক্তভোগী অর্জুন বাদুরীর এক আত্মীয় বলেন, ডাকাত দল দোকান থেকে অন্তত ৫০ লাখ টাকার স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে গেছে। তবে অর্জুন বাদুরীর জ্ঞান ফিরলে ক্ষয়ক্ষতির প্রকৃত তথ্য পাওয়া যাবে।

এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা আবদুল জলিল বলেন, দুটি মোটরসাইকেলে হেলমেট পরা ছয়জন সশস্ত্র ডাকাত ছিল। দলটি অর্জুনের দোকানে ঢুকে তাঁকে কুপিয়ে আহত করে বাজারে ককটেল ফাটিয়ে স্বর্ণালংকার লুট করে মোটরসাইকেলে উত্তর দিকে পালিয়ে গেছে।

সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. খালেদ দাইয়ান বলেন, খবর পেয়ে আমি পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছেন। কীভাবে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে এবং কারা ঘটিয়েছে, তার মূল রহস্য উদ্‌ঘাটনের কাজ চলছে। জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে।

Spread the love
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us