শিরোনাম

ভিজিডি চালের অনিয়ম ও দুর্নীতি

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : মঙ্গলবার, জানুয়ারি ৫, ২০২১ ১২:১৩:৫১ অপরাহ্ণ
ভিজিডি চালের অনিয়ম ও দুর্নীতি
ভিজিডি চালের অনিয়ম ও দুর্নীতি

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার ডৌহাখলা ইউনিয়নে ভিজিডি কর্মসূচির চাল ওজনে কম দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। প্রতিটি বস্তায় ৩০ কেজি চাল থাকার নিয়ম থাকলেও সেখানে দেওয়া হচ্ছে ২৬ কেজি।

ডৌহাখলা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সরকার বলছেন, গৌরীপুর খাদ্যগুদাম থেকে কম ওজনের ওই বস্তা সরবরাহ করা হয়েছে। তবে গৌরীপুর খাদ্যগুদামের খাদ্য নিয়ন্ত্রক এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

অভিযোগের সত্যতা যাছাইয়ে সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) সরেজমিনে গণমাধ্যমকর্মীরা যায় ডৌহাখলা ইউনিয়ন পরিষদে। সত্যতা নিশ্চিত করতে উপকারভোগীরা একটি ডিজিটাল মিটার নিয়ে আসেন পরিষদের গোদামে। ইউপি সদস্য আবুল কালাম এবং ২০/২৫ জন উপকারভোগী এবং স্থানীয়দের সম্মুখে ওজন দেওয়া হলে দেখা যায় প্রতি বস্তায় ৪/৫ কেজি চাল কম রয়েছে। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কে বিষয়টি অবহিত করা হলে তিনি নিজে গিয়ে পরিদর্শন করেন ডৌহাখলা ইউনিয়ন পরিষদের গোদাম। পরে তিনি (ইউপি) চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সরকারের সাথে শলা পরামর্শ করে সোমবার (৪ জানুয়ারি) সকলের উপস্থিতিতে চাল দেয়া হবে বলে গনমাধ্যমকর্মী, স্থানীয় রাজনীতিবীদ ও এলাকাবাসীর কাছে জানান। সোমবার ডৌহাখলা ইউনিয়ন পরিষদে গণমাধ্যমকর্মীরা গিয়ে দেখতে পায় উপকারভোগীরা দাড়িয়ে আছে কিন্তু চাল দেয়ার কোন ব্যবস্থা নেই। পরে জানা যায় পুনরায় তারিখ পরিবর্তন করে ৭ জানুয়ারি বৃস্পতিবারে নেয়া হয়েছে।

উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তর অসচ্ছল নারীদের খাদ্য সহায়তা বাবদ প্রত্যেককে প্রতি মাসে ৩০ কেজি করে চাল সরবরাহ করে থাকে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us