শিরোনাম

মজনু কেন আত্মহত্যা করতে চায়

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, নভেম্বর ২০, ২০২০ ৮:৪৯:২৪ পূর্বাহ্ণ
মজনু কেন আত্মহত্যা করতে চায়
মজনু কেন আত্মহত্যা করতে চায়

রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ মামলায় একমাত্র আসামি মজনুকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল দুপুরে ঢাকার সপ্তম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোছা. কামরুন্নাহার মামলার রায় ঘোষণা করেন। ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হওয়ার আগের আইনের সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডই দেয়া হয়েছে মজনুকে। একই সঙ্গে বিচারক তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন, যা না দিতে পারলে তাকে আরো ছয় মাস জেল খাটতে হবে।

এর আগে, আসামি মজনুকে বেলা ২টার দিকে কারাগার থেকে আদালত প্রাঙ্গণে নিয়ে আসা হয়। এ সময় উপস্থিত সবাইকে উদ্দেশ্য করে  তাকে ছেড়ে দেয়ার আকুতি জানাতে থাকে। বলতে থাকে, আমারে ছাইড়া দেন, ঢাকায় আর আসমু না, বাড়ি চইলা যামু, আমারে ছাইড়া দেন। এরপর ২টা ২৫ মিনিটে আদালত কক্ষে নেয়া হলে চিৎকার চেঁচামেচি করতে থাকে। বলতে থাকে, আমি ধর্ষণ করি নাই, ধর্ষণ করছে চারজন মিলে।আমাকে ছেড়ে না দিলে লাফ দিয়ে মরে যাব। তার এই কথা শুনে উপস্থিত সবাই হতবাক হয়ে যান। তাদের প্রশ্ন, কেন মজনু আত্মহত্যা করতে চায়? এই কথা বলার পর আসামি মজনু আরো বলে, আমি ধর্ষণ করি নাই, ধর্ষণ করছে চারজন মিলে। কিন্তু পুলিশ তাদের ধরছে না। আমি গরিব দেখে আমাকে ধরেছে। আমার নাম মজনু পাগল, আমার গায়ে শক্তি নাই। আমাকে ছেড়ে দেন। আইজকা ছাইড়া দ্যান। আমারে মারছে। কাশিমপুরে মশা। আমারে কোনো কিছু খাতি দ্যায় নাই। একপর্যায়ে কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে হাজত পুলিশের এক সদস্যের ঘাড় চেপে ধরে আসামি মজনু। এরপর কাঁদতে কাঁদতে কোর্ট হাজতের ওসির কাছে অভিযোগ জানাতে থাকে এবং পুলিশ সদস্যদের গালাগাল শুরু করে। তার চিৎকার চেঁচামেচিতে বাধ্য হয়ে একপর্যায়ে বিচারক সাংবাদিক ও উৎসুক আইনজীবীদের বাইরে বারান্দায় যেতে বলে শুধু জ্যেষ্ঠ আইনজীবীদের একজনকে এজলাসে থাকার অনুমতি দেন।

এ ব্যাপারে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আফরোজা ফারহানা আহম্মেদ অরেঞ্জ বলেন, ক্যামেরা দেখে আসামি মজনু সিন ক্রিয়েট করছে। আসামির আইনজীবী বলেন, সে নেচারালি এ রকম। আজ অনেক লোক যখন প্রশ্ন করেছে, সে ধর্ষণ করেছে কি না সেই সুযোগে সে উল্টো পাল্টা আচরণ করেছে। অস্বাভাবিক আচরণ করেছে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর