শিরোনাম

মাদরাসা ছাত্রকে বলাৎকারের পর কোরআন শরিফ শপথ করালেন শিক্ষক

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, এপ্রিল ৯, ২০২১ ১২:২০:১৯ পূর্বাহ্ণ
মাদরাসা ছাত্রকে বলাৎকারের পর কোরআন শরিফ শপথ করালেন শিক্ষক
মাদরাসা ছাত্রকে বলাৎকারের পর কোরআন শরিফ শপথ করালেন শিক্ষক

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরের বড়খারচর আদর্শ নুরানি ও হাফিজিয়া মাদরাসার মোহতামিম মাওলানা ইয়াকুব আলীর (৩২) বিরুদ্ধে ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ।

বলাৎকারের পর ভুক্তভোগী ছাত্র কান্নাকাটি শুরু করে দেয়। শিক্ষক ইয়াকুব আলী প্রথমে মারধরের ভয় -ভীতি দেখায়।অতঃপর নিশ্চিত হওয়ার জন্য ওই ছাত্রকে কোরআন শরিফ ধরিয়ে শপথ করান।

মামলার এজাহারে ছাত্রের বাবা উল্লেখ করেন, ২ এপ্রিল মাদরাসা থেকে বাড়ি এসে আর যেতে না চাইলে ছেলেকে একাধিকবার মারধর করি। এরপরও মাদরাসায় যেতে অস্বীকৃতি জানায়। গত কয়েকদিনের চাপে বুধবার (০৭ এপ্রিল) মাদরাসায় যাওয়ার কথা বলে তার মাকে কুলিয়ারচর থানায় নিয়ে যায়। তখন তার মা বিষয়টি বুঝতে পারেনি। বাসায় গিয়ে মাকে ছেলেটি বলে মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতির কাছে নিয়ে যেতে। পরে মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুস সাত্তার মাস্টারের কাছে নিয়ে গেলে বলাৎকারের কথা খুলে বলে ছেলে।

ভুক্তভোগী ছাত্র জানায়, ইয়াকুব আলী হুজুর ৩১ মার্চ রাত ২টার দিকে ঘুম থেকে তুলে আমার সঙ্গে খারাপ কাজ করেছে। খারাপ কাজ করার পর কোরআন শরিফ ধরিয়ে কসম করায় কাউকে না বলতে। এর আগেও ওই হুজুর আমার সঙ্গে খারাপ কাজ করেছে। কিন্তু ভয়ে কাউকে কিছু বলতে সাহস পাইনি।কুলিয়ারচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম সুলতান মাহমুদ বলেন,ভুক্তভোগী বাবা ইয়াকুব আলীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে, আমরা মামলা অনুসারে ইয়াকুব আলী গ্রেফতারের চেষ্টা করছি।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us