শিরোনাম

মাধবপুরে ইটাখোলা বীজ উৎপাদন খামারের সিনিয়র সহকারী পরিচালকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, জুলাই ২৯, ২০২০ ৩:১৮:২২ অপরাহ্ণ
মাধবপুরে ইটাখোলা বীজ উৎপাদন খামারের সিনিয়র সহকারী পরিচালকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ
মাধবপুরে ইটাখোলা বীজ উৎপাদন খামারের সিনিয়র সহকারী পরিচালকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

মাধবপুর প্রতিনিধি :

মাধবপুরে ইটাখোলা বীজ উৎপাদন খামারের সিনিয়র সহকারী পরিচালক খোরশেদ আলমের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ দায়ের করেছে খামারের শ্রমিকরা।অভিযোগ সুত্রে  জানাযায় সিনিয়র সহকারী পরিচালক খোরশেদ আলম ইটাখোলা বীজ উৎপাদন খামারে আসার পরথেকে দিনের পর দিন ফসলের পরিচর্যা না করে ।

শ্রমিক দের কাজ না দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছেন লাখ লাখ টাকা।২০১৯-২০২০ইং অর্থ বছরে খামারের আলুর ফসলের জীবানুর জন্য ব্লিচিং পাউডার কীটনাশক আগাছা পরিস্কারের জন্য যা যা প্রয়োগ করা দরকার ছিল উনি তা প্রয়োগ না করে আলুর ফসল নস্ট করেছেন।খামারের শ্রমিক দের,কাজ না দিয়ে বসিয়ে রেখে ২০২০ইং বর্তমান বীজ ধান বোরো বি ২৯ ধান ইচ্ছাকৃত ভাবে নস্ট করে দিয়েছে।

মাঠে পাকা বীজ ধান থাকার পরেও তিনি শ্রমিক দের এক দিন পর পর কাজ দিয়েছেন।উনার ইচ্ছে হল বীজ ধান খাদ্য হিসাবে রাখলে হাতিয়ে নিতে পারবেন খামারের লক্ষ লক্ষ টাকা।এদিকে কৃষক রা যেন ভাল বীজ পায় সরকার প্রতিবছর ই কৃষি ক্ষাতে বড় বাজেট দিচ্ছেন,কিন্তু খামার পরিচালক খোরশেদ আলম যোগদানের পর থেকে ধানের বীজ নস্ট করে সরকারের ক্ষতি করছেন|

এছাড়া ও খামার শ্রমিকদের নিয়োগ নীতিমালায় কোন উল্লেখ না থাকায় শ্রমিকদের একদিন পরপর কাজ দিয়ে  খামার পরিচালক  মাস শেষে হাজিরা খাতায় ঠিকই সাক্ষর করিয়ে দেন।এছাড়া ও মুজুরী প্রদানের সময় শ্রমিকদের একদিনের মুজুরী রেখে দেন।

বিষয় টি নিয়ে খামারের শ্রমিকরা প্রতিবাদ করলে,অনেক কে কাজ থেকে বাদ দিয়ে দেয়।ইটাখোলা বীজ উৎপাদন খামার কৃষি মন্ত্রনালয় এর অধীনে থাকলে ও খামারে আউশ ফসল না করে অস্থায়ী হাঁসের খামার বসিয়ে ছিলেন।বিনিময়ে তিনি হাতিয়ে নিয়েছেন মোটা অংকের টাকা।

ভুক্তভোগী ইটাখোলা বীজ উৎপাদন খামারের শ্রমিকদের সাথে  হলে তারা বলেন সিনিয়র সহকারী পরিচালক খোরশেদ আলম এর অনিয়ম এর বিরুদ্ধে কথা বললে আমাদের বিভিন্ন মামলার  হুমকি দেওয়া হয়এবং কাজ থেকে বাদ দেওয়া হয় ।তাই আমরা নিরুপায় হয়ে জেলা প্রশাসক এর বরাবর উনার দুর্নীতির বিরুদ্ধে  ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য আবেদন করেছি।

ইটাখোলা বীজ উৎপাদন খামারের সিনিয়র সহকারী পরিচালক খোরশেদ আলমের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে  তিনি বলেন আমার বিরুদ্ধে দায়ের করা সকল অভিযোগ মিথ্যা,আমি সঠিক ভাবে খামার পরিচালনা করছি।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর