শিরোনাম

মাধবপুরে প্রকাশ্যে রমরমা ভারতীয় ফেনসিডিলের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে মাদক ব্যবসায়ী হানিফ ও তাপস

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শনিবার, জুলাই ১৮, ২০২০ ১১:৫৪:৪৪ অপরাহ্ণ
মাধবপুরে প্রকাশ্যে রমরমা ভারতীয় ফেনসিডিলের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে মাদক ব্যবসায়ী হানিফ ও তাপস
মাধবপুরে প্রকাশ্যে রমরমা ভারতীয় ফেনসিডিলের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে মাদক ব্যবসায়ী হানিফ ও তাপস
মাধবপুর প্রতিনিধি :
হবিগঞ্জের মাধবপুরে বিশ্ব মহামারী করোনার মধ্যেও সুযোগ সন্ধানী মাদক ব্যবসায়ী প্রকাশ্যে ভারতীয় ফেনসিডিল বিক্রি করে যাচ্ছে উপজেলার ধর্মঘর গ্রামের মৃত আব্দুল হাশিমের ছেলে হানিফ মিয়া ও ইমান আলীর ছেলে তাপন মিয়া।
এলাকা সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবৎ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে অবৈধভাবে প্রতি নিয়ত রমরমা ভারতীয় ফেনসিডিল বিক্রি করে যাচ্ছে হানিফ ও তাপস। বিভিন্ন এলাকা থেকে মাদক  ক্রয় ও সেবন করতে আসা লোকদের বাধা দিলে স্থানীয় এলাকাবাসী ও সচেতন মহলকে মিথ্যা মামলার হুমকি প্রদান করেন এই দুই কথিত মাদক ব্যবসায়ী হানিফ ও তাপস।
এলাকার লোকেরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে তাদের এই কর্মকাণ্ডে এবং ভালো ভালো  পরিবারের  উঠতি বয়সের যুবকদের  মোটা অঙ্কের টাকার লোভ দেখিয়ে এই কাজে জড়িত করছে বলে জানা যায়।  মাধবপুরে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও পুলিশ সহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান অব্যাহত থাকলেও এই দুই মাদক ব্যবসায়ী ধরা ছোঁয়ার বাহিরে থেকেই যায় । মাদক ব্যবসায়ী হানিফ ও তাপসের খুঁটির জোর কোথায়?
উল্লেখ্য গত (৫ ই জুলাই) ১৫ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ মোঃ হৃদয় মিয়া পিতা মনু মিয়া এবং মোঃ রফিকুল ইসলাম (হৃদয়) পিতা আব্দুর রহিম অটো ড্রাইভার এবং হেলপার পরিচয়দানকারী মাধবপুর থানার অন্তর্গত কাশিমনগর পুলিশ ফাঁড়ির ফোর্সরা উপজেলার সুলতানপুর গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করে এবং প্রকৃত মূল মাদক ব্যবসায়ী হানিফ ও তাপস দৌড়ে পালিয়ে যায় ঘটনাস্থল থেকে।
পরে সন্দেহভাজন গ্রেপ্তারকৃত অটো ড্রাইভার  ও হেলপারকে ভ্রাম্যমান আদালতে মাধ্যমে মাধবপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আয়েশা আক্তার বিনাশ্রম ৩ মাসের কারাদন্ড প্রদান করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।
এবং এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আয়েশা আক্তার এর কাছে সন্দেহভাজন গ্রেপ্তারকৃত হৃদয় মিয়া ও রফিকুল ইসলাম জবানবন্দি দেয় ফেনসিডিল এর প্রকৃত মালিক হানিফ ও তাপস আমরা গাড়ির ড্রাইভার ও হেলপার জবানবন্দির প্ররি প্রেক্ষিতে মাদকের এই ২ গডফাদারকে আটক করার জন্য নির্দেশ দেন পুলিশকে কিন্তু এখন পর্যন্ত ধরাছোঁয়ার বাইরে মাদক ব্যবসায়ী তাপস ও হানিফ। স্থানীয় শিক্ষিত সচেতন মহলের দাবি আসামীদের জবানবন্দি থাকার শর্তেও স্থানীয় প্রশাসন এখন পর্যন্ত নিরব কেন?
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর