শিরোনাম

মায়ানমারে সামরিক জ্যান্তা বিরুদ্ধে দিনভর বিক্ষোভে ১৮ জন নিহত

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, মার্চ ১, ২০২১ ৯:১৫:৪৭ পূর্বাহ্ণ
মায়ানমারে সামরিক জ্যান্তা বিরুদ্ধে দিনভর বিক্ষোভে ১৮ জন নিহত
মায়ানমারে সামরিক জ্যান্তা বিরুদ্ধে দিনভর বিক্ষোভে ১৮ জন নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক গোলাম মোস্তফা(মোস্তাক) :২৮ ফ্রেবুয়ারী সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে রক্তাক্ত দিন পার করল মিয়ানমারের গনতন্ত্রকামী সাধারন জনতা। গুলি, স্মোক গ্রেনেড ছুঁড়ে বিক্ষোভকারীদের দমন করেছে পুলিশ ও সামরিক বাহিনী এতে অন্তত ১৮ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে জাতিসংঘ ৷ প্রায় ৫০ বছরের সামরিক শাসনের পরে গণতন্ত্রের দিকে সাময়িক পদক্ষেপের কাজ থামিয়ে দেওয়া মায়ানমার সামরিক জ্যান্তার অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে গত ১ লা ফেব্রুয়ারী থেকে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় বিক্ষোভ করে আসছে । মায়ানমারের দক্ষিণের শহর দাওয়াইতে গুলি চালিয়ে তিনজনকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাজনীতিবিদ খিয়াও মিন টিকে৷ এই মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে স্থানীয় গণমাধ্যম ৷ গুলি চালানো হয়েছে ইয়াঙ্গুনেও৷ হাসপাতালে গুলিবিদ্ধ একজনকে আনার পর মৃত্যু হয়েছে বলে সেখানকার একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন৷ মিয়ানমারের মিডিয়া আউটলেট মিজিমাও এই তথ্য দিয়েছে৷ ইয়াঙ্গুনে অনেক শিক্ষার্থী ও শিক্ষককে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে৷ ডয়চে ভেলের কাছে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন আন্দোলনকারী দাবি করেন, অ্যাম্বুলেন্স ও হাসপাতালেও হামলা চালিয়েছে সামরিক বাহিনী৷ জাতিসংঘের মানবাধিকার দপ্তরের মুখপাত্র রাভিনা শামদাসানি এক বিবৃতিতে মিয়ানমারের বেড়ে চলা সহিংসতার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন এবং শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদকারীদের উপর শক্তি প্রয়োগ অবিলম্বে বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন ৷ মার্কিন দূতাবাস জানিয়েছে, “মিয়ানমারে এত বেশি প্রাণহানির ঘটনা দেখে আমরা হৃদয়বিদারক হয়ে পড়েছি।” কানাডিয়ান দূতাবাস জানিয়েছে যে এটি দেখে তারা হতবাক হয়েছে। সংকট নিয়ে দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় জাতিসংঘের সংস্থার (আসিয়ান) মধ্যে কূটনৈতিক নেতৃত্ব গ্রহণকারী ইন্দোনেশিয়া গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। এদিকে মিয়ানমারে জাতিসংঘের রাষ্ট্রদূত কিয়াউ মো তুন শুক্রবার সামরিক বাহিনীর সরকারের বিরুদ্ধে সাধারণ পরিষদে বক্তব্য রাখেন৷ অং সান সু চির বেসামরিক সরকারের পক্ষে নিজের অবস্থান ব্যক্ত করে আন্তর্জাতিক সহযোগিতার আহ্বান জানান তিনি৷ এই ঘটনার জেরে শনিবার তাকে রাষ্ট্রদূতের পদ থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে৷ কারণ হিসেবে মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় সম্প্রচার মাধ্যম বলেছে, তিনি দেশের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা ও দূত হিসেবে ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন৷ এদিকে কিয়াও মো তুন রয়টার্সকে বলেছেন, ‘‘যত দিন সম্ভব আমি লড়াই চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷’’

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us