শিরোনাম

মুক্তিপণ না পেয়ে হত্যা অপহরণেরর ২৫দিন পর লাশ উদ্ধার করছে পুলিশ।

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, এপ্রিল ২১, ২০২১ ১:১৫:৩৩ অপরাহ্ণ
মুক্তিপণ না পেয়ে হত্যা অপহরণেরর ২৫দিন পর লাশ উদ্ধার করছে পুলিশ।
মুক্তিপণ না পেয়ে হত্যা অপহরণেরর ২৫দিন পর লাশ উদ্ধার করছে পুলিশ।

মো:হাসান লামা উপজেলা প্রতিনিধি:—- ২১ এপ্রিল রাত দুই টায় লামা উপজেলার ৬নং রুপসীপাড়া ইউনিয়নের ১নং এবং ৫ নং ওয়ার্ডের মধ্যবর্তী স্থান শিংঝিরি নামক এলাকার গভীর জঙ্গল থেকে লামা থানা পুলিশের অভিযানে হাফেজ মোঃ অলিউল্লাহ (২৫) পিতাঃ মোবারক হোসেন সাং: বিশম্ভপুর, ৮নং ওয়ার্ড,ফতেয়াবাদ ইউনিয়ন,থানা দেবিদ্বার, জেলাঃ কুমিল্লা নামে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয।

নিহতের বড় ভাই রিয়াজ উদ্দিন সোহেল (২৪) বলেন, গত ২২ মার্চ ২০২১ইং ছোট ভাই হাফেজ স্বাধীন তার ফুফাতো ভাই মোঃ আরিফুল ইসলাম এর সাথে বেড়ানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। কয়েকদিন যাবৎ ছোট ভাইয়ের কোন খোঁজ খবর না পেয়ে আমরা গত ২৪ মার্চ ২০২১ইং কুমিল্লার বুড়িচং থানায় হারানোর জিডি করে। জিডির সূত্র ধরে তার মোবাইল নাম্বার ট্রেকিং করে মঙ্গলবার লামা থানায় আসি।

আমাদের দেয়া তথ্য মতে অভিযান চালিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে লামা থানা পুলিশ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আসামী ফয়েজ আহমদ ও আরিফুল ইসলামকে সন্দেহভাজন হিসাবে উপজেলার রূপসীপাড়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বেত ঝিরি ফয়েজ আহমদের শশুড় বাড়ি থেকে তাদের আটক করে।

ফয়েজ আহমদ বেত ঝিরি এলাকার ইউনুচ মোল্লার মেয়ের জামাই। তাদের আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ করলে চাঞ্চল্যকর তথ্য পায় পুলিশ। আসামীদের দেয়া তথ্য মতে মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টায় অভিযানে বের হয় লামা থানা।

রাত ১টায় আসামী ও নিহতের দুইভাইকে সাথে নিয়ে খুনের ঘটনাস্থলে পৌঁছায় লামা থানা পুলিশ। আসামীদের দেখানো স্থান রূপসীপাড়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের শিং ঝিরিস্থ পাহাড়ের উপরে রাত ১টা থেকে ৩টা পর্যন্ত মাটি খুঁড়ে নিহত হাফেজ স্বাধীন এর লাশ উদ্ধার করা হয়।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। তার সাথে অভিযানে অংশ নেন লামা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আসিফ মাহমুদ, থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোঃ আলমগীর, পুলিশের উপ-পরিদর্শক মোঃ রাশেদ, আশ্রাফুল ইসলাম, ত্রিদীপ বড়ুয়া, মোঃ ফরিদ, রূপসীপাড়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড মেম্বার আবু তাহের সহ লামা থানা পুলিশের অন্যান্য অফিসার ও পুলিশ সদস্যরা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, আসামীদের দেয়া তথ্য মতে ও তাদের দেখানো স্থানে মাটি খুঁড়ে আমরা নিহত হাফেজ স্বাধীন এর লাশ উদ্ধার করতে সক্ষম হই।

লাশটি যে হাফেজ মোঃ অলি উল্লাহ স্বাধীনের তা তার বড় দুই ভাই রিয়াজ উদ্দিন সোহেল ও মোঃ জিলানী বাবু নিশ্চিত করেছে। ময়নাতদন্ত শেষে লাশ নিহতের পরিবারের লোকজনের কাছে হস্তান্তর করা হবে। দীর্ঘদিন হওয়ায় লাশ অনেকাংশ পঁচে গলে গেছে৷

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us