শিরোনাম

র‌্যাবের অভিযানে জয়পুরহাটে প্রতারক চক্রের ৬ সদস্য গ্রেফতার

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শনিবার, জানুয়ারি ৮, ২০২২ ৮:১০:৪৮ অপরাহ্ণ
র‌্যাবের অভিযানে জয়পুরহাটে প্রতারক চক্রের ৬ সদস্য গ্রেফতার
র‌্যাবের অভিযানে জয়পুরহাটে প্রতারক চক্রের ৬ সদস্য গ্রেফতার
আবু রায়হান, জয়পুরহাটঃ
জয়পুরহাট জেলা সদরের পাচুর মোড় বৈশাখী আবাসিক হোটেলে অভিযান পরিচালনা
করে প্রতারক চক্রের ৬ সদস্য গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট ক্যাম্পের একটি চৌকস আভিযানিক দল।
শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) রাত ১০ টা ৫ মিনিটে জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক লেঃ কমান্ডার তৌকির এবং অতিঃপুলিশ সুপার জাহিদ এর নেতৃত্বে এসময় সংগঠিত কুখ্যাত ওই প্রতারক চক্রের কাছ থেকে ৩ টি জাল মুদ্রা, ১ বোতল রাসায়নিক পদার্থ, ১ টি নিশান কার, ১৩.০০.০০০ টাকার ১টি জাল চেক, ও ১১ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করেছে র‌্যাবের অভিযানিক দল।
গ্রেফতারকৃত প্রতারক চক্রের সদস্যরা হলেন ঢাকা বংশাল থানাধীন  বাগডাসালেন নয়াবাজার এলাকার মৃত সৈয়দ হোসেনের ছেলে এস এস আলম (৫০),
ডিএমপি ঢাকা শিল্পাঞ্চল থানাধীন নাখালপাড়া সিএসপি-৩০৮ এলাকার মৃত সাইজুদ্দিনের ছেলে
টিটু মিয়া (৪৮), গোপালগঞ্জ জেলার মকছেদপুর থানাধীন বেজরা এলাকার মৃত আকমল ভূইয়ার ছেলে মিন্টু ভূইয়া (৩৮), পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া থানাধীন হরিণপালা এলাকার আব্দুল আজিজ হাওলাদারের ছেলে মাহফুজ হাওলাদার (৩৫), নোয়াখালী জেলার সুধারাম থানাধীন পূর্ব মহোদুলি এলাকার মৃত গোলাপের রহমানের ছেলে ফজলুল হক (৪৮) ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর থানার নওদাপাড়া এলাকার এনামুল হক জেল্টুর ছেলে শাহিন উদ্দিন মিলন (৩০)।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে র‌্যাব জানান,  গ্রেফতারকৃত সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের সদস্যরা জাল কয়েন বিক্রি করে, যেগুলো খুব দামি এবং উচ্চ বিকিরণ পদার্থ দিয়ে তৈরী বলে দাবি করা হয়। তারা মুদ্রার সাথে বিভিন্ন উদ্বায়ী রাসায়নিক ব্যবহার করে যাতে মুদ্রা বাতাসের সংস্পর্শে আসলে সাদা কুয়াশা তৈরী হয় এবং কয়েনগুলো খাটি বলে গ্রাহকদের সাথে প্রতারণা করে এবং অবৈধভাবে অর্থ উপার্জন করে আসছিল এবং তারা ঢাকাতে গার্মেন্টসে কাজ করে।
তাদের বিরুদ্ধে জয়পুরহাট জেলার সদর থানায় মামলা দায়ের করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
Spread the love
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us