শিরোনাম

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ক্ষতির সম্মুখে বইয়ের দোকান

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, মার্চ ৩, ২০২১ ১২:৫১:৫৬ অপরাহ্ণ
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ক্ষতির সম্মুখে বইয়ের দোকান
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ক্ষতির সম্মুখে বইয়ের দোকান
মাসুদ রানা,রাজারহাট, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামে করোনায় বিপাকে পড়েছেন কয়েকশ  ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। বিশেষ করে যারা স্কুল-কলেজ কেন্দ্রিক ব্যবসা করেন, এগুলো বন্ধ থাকায় তারা ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন।
অনেক ব্যবসায়ী তাদের ব্যবসা গুটিয়ে নিয়েছেন আবার অনেকে শেষ পর্যন্ত মাটি কামড়ে পড়ে আছেন তাদের কর্মস্থলে। করোনার শুরুতে লকডাউনের সময়ে প্রায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে কঠিন সময় পার করতে হয়েছে।
রাস্তাঘাট, কল-কারখানা চালু হওয়াতে ধীরে ধীরে জনজীবন স্বাভাবিক হয়েছে, তবে স্বাভাবিক হতে পারেনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে কেন্দ্র করে যাদের ব্যবসা। এদের মধ্যে আছেন বইয়ের দোকান মালিক, স্টেশনারি দোকান, শিক্ষার্থীদের ড্রেস তৈরি করে এমন দর্জির দোকান ও স্কুল কলেজের পাশের হোটেল ব্যবসায়ীরা।
রাজারহাট উপজেলার মীর ইসমাইল হোসেন  কলেজের সামনে মোশাররফ হোসেনের দোকান। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, তিনি তার দোকানে বসে সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাক্টিভ। জানতে চাইলে তিনি বলেন, কাম-কাজ নাই, কী করবো ?’ প্রায় এক বছর থেকে ক্ষতির পরিমাণ এতটা বেড়েছে, তা বলে শেষ করতে পারব না।  ঋণ করে সংসার চালাচ্ছি। জানি না আর কত দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে?
ব্যবসায়িক খোঁজখবর নেওয়ার এক পর্যায়ে তিনি বলেন, ‘ব্যবসা বলতে আমাদের কোনো কিছু নেই, এখন দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে আমাদের। করোনা মহামারির কারণে আমাদের ব্যবসা এখন ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। আমাদের ব্যবসাটা আসলে শিক্ষাকেন্দ্রিক। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় আমরা প্রায় বেকার হয়ে পড়েছি। আমাদের যে টাকা আয় হয় আমাদের ব্যয় তার থেকে বেশি। আমরা ব্যবসাটা ছাড়তেও পারছি না আবার দোকান ভাড়াও পরিশোধ করতে পারছি না। রাস্তায় গিয়ে রিকশাও চালাতে পারছি না আবার কোনো ব্যাংকও আমাদের লোন দেবে না। সত্যি বলতে আমরা জীবনের সবচেয়ে সংকটময় সময় পার করছি।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us