শিরোনাম

শিশু ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় ২২ ঘন্টার মধ্যে অভিযোগপত্র দাখিল

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শনিবার, জুন ১২, ২০২১ ১০:৩৬:৫৯ পূর্বাহ্ণ
শিশু ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় ২২ ঘন্টার মধ্যে অভিযোগপত্র দাখিল
শিশু ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় ২২ ঘন্টার মধ্যে অভিযোগপত্র দাখিল

ফরিদপুর থেকে জাকির হোসেন:

পুলিশ সুপার, ফরিদপুর মহোদয়ের তত্ত্বাবধানে ও দিক নিদের্শনায় তথ্য ও উপাত্ত যাচাই পূর্বক বোয়ালমারী থানার মামলা নং-০৮, তাং-১০/০৬/২০২১খ্রিঃ, ধারাঃ-নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০০ সংশোধনী-২০০৩ এর ৯(৪)(খ) মামলাটি মাত্র ২২ ঘন্টার মধ্যে নিষ্পত্তি করা হয়।

বাদী ইব্রাহিম শেখ, পিতা- মৃত কদম শেখ, সাং- পূর্ব ভাটদী, থানা- বোয়ালমারী, জেলা-ফরিদপুর লিখিতভাবে জানান যে, আসামী আরিফ দর্জি (৩০), পিতা- হাসেম দর্জি, সাং- জয়কালি, থানা- সালথা, জেলা- ফরিদপুর এর সাথে বাদীর মেয়ে ভিকটিম চাদনীর (১৪) এর বান্ধবী সুমাইয়া (১৩), পিতা- ছিদ্দিক সরদার, সাং- পূর্ব ভাটদী, থানা- বোয়ালমারী, জেলা-ফরিদপুর এর সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। আরিফ দর্জি দিনে ও রাতে বিভিন্ন সময়ে সুমাইয়ার সাথে দেখা করত। এসব বিষয় ভিকটিম চাদনী (১৪) জানত এবং আসামী আরিফ দর্জিকে সুমাইয়ার সাথে দেখা করতে নিষেধ করে এবং বলে যে, এরপরে আসলে বাড়ীর সবাইকে তাদের সম্পর্কে বলে দিবে।

তখন আসামী আরিফ দর্জি চাদনীকে এ বিষয়ে কাউকে না বলতে নিষেধ করে এবং সুমাইয়ার সাথে দেখা করার জন্য তাকে সহযোগিতা করতে বলে। কিন্তু চাদনী সহযোগিতা করেনি। এর জের ধরে আসামী আরিফ দর্জি ক্ষিপ্ত হয়ে ইং ০৮/০৬/২০২১ তারিখ রাত্রি অনুমান ০৮.০০ ঘটিকার সময় ভিকটিম চাদনী বাড়ীর পূর্ব পাশে টিউবওয়েল হাত মুখ ধুতে গেলে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা আসামী আরিফ দর্জি ভিকটিম চাদনীর মুখে গামছা বেধে জোর পূর্বক বাদীর বাড়ীর পূর্ব দিকে পাট ক্ষেতের মধ্য নিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে এবং ধর্ষণ করতে না দিলে ভিকটিমকে মারধর করে। ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে ভিকটিম আসামীর নিকট থেকে ছুটে গিয়ে চিৎকার করে এবং বাড়ীর দিকে দৌড়ে চলে আসে।

পরবর্তীতে বাদী এবং আশ পাশের লোকজন ভিকটিমের চিৎকার শুনে ভিকটিম চাদনীকে উদ্ধার করে। বাদী উক্ত ঘটনায় বিষয়ে অদ্য ইং-১০/০৬/২০২১ তারিখ ২২.৩০ ঘটিকায় অফিসার ইনচার্জ বোয়ালমারী থানা বরাবর এজাহার দায়ের করলে অফিসার ইনচার্জ বোয়ালমারী থানার মামলা নং-০৮, তাং-১০/০৬/২০২১খ্রিঃ, ধারা- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০০ সংশোধনী-২০০৩ এর ৯(৪)(খ) রুজু করে এসআই/ মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন এর নামে হাওলা করেন।

পরবর্তীতে পুলিশ সুপার ফরিদপুর স্যারের সরাসরি দিকনির্দেশনায় অফিসার ইনচার্জ, বোয়ালমারী থানা ও সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার, মধুখালী সার্কেল স্যারের তত্তাবধানে তদন্তকারী কর্মকর্তা দ্রুততম সময়ের মধ্যে অত্র মামলার এজাহার নামীয় আসামী আরিফ দর্জিকে ফরিদপুর জেলার সালথা থানা থেকে গ্রেফতার করে এবং জিজ্ঞাসাবাদ করলে আসামী তার দোষ স্বীকার করে।

ভিকটিম চাদনী বিজ্ঞ আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০০ (সংশোধনী-২০০৩) এর ২২ ধারা মতে জবানবন্দি প্রদান করেন। মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই/ মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন ইং ১১/০৬/২০২১ তারিখ রাত ২০.৩০ ঘটিকার সময় ২২ ঘন্টার মধ্যে সমস্ত তদন্ত সম্পন্ন করে এজাহার নামীয় আসামী আরিফ দর্জি (৩০) এর বিরুদ্ধে বোয়ালমারী থানার অভিযোগপত্র

নং-৮৯, তাং-১১/০৬/২০২১, ধারা- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০০ সংশোধনী-২০০৩ এর ৯(৪)(খ) বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-০৭ ফরিদপুর বরাবর দাখিল করেন মর্মে জেলা পুলিশ  ফরিদপুর জানান।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us