শিরোনাম

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, নভেম্বর ২০, ২০২০ ৯:১৯:১০ অপরাহ্ণ
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

“টুয়েন্টি টুয়েন্টি উইটসা গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ডস্” এর পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ ক্যাটাগরিতে আন্তর্জাতিক সম্মাননা পেল গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এর অধীনে “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প (iDEA)”। রানার-আপ হিসেবে উক্ত ক্যাটাগরিতে সম্মানজনক এই আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ডটির সনদ গ্রহণ করে iDEA প্রকল্প। মালয়েশিয়ার অন্যতম শহর পেনাংয়ে অনুষ্ঠিত গত ১৯ নভেম্বর ২০২০ বৃহস্পতিবারে “টুয়েন্টি টুয়েন্টি টেকফেস্ট লাইভ! এক্স রোড-টু-রোড- (ডাব্লুসিআইটি) মালয়েশিয়া হাইব্রিট ইভেন্টে “ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সার্ভিসেস অ্যালায়েন্স (ডাব্লুআইটিএসএ)” কর্তৃক বিশেষ উইটসা চেয়ারম্যান অ্যাওয়ার্ডসহ “টুয়েন্টি টুয়েন্টি উইটসা গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ডস্” প্রদান করা হয়। এবারে বিশ্বের ৪টি মহাদেশ থেকে মোট ১০ টি ক্যাটাগরিতে ১২ টি প্রাইভেট ও পাবলিক প্রতিষ্ঠানকে এই অ্যাওয়ার্ডের জন্য নির্বাচন করা হয় যেখানে প্রতিটি ক্যাটাগরিতে উইনারসহ ১০ টি রানার-আপ ও ২১টি মেরিট অ্যাওয়ার্ডস্ স্বীকৃতি দেওয়া হয়। এর মধ্যে বাংলাদেশ ৪ টি বিভাগে রানারআপ ও ২ টি বিভাগে মেরিট পুরস্কার পেয়েছে।

 

বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক, এমপি  আইসিটি বিভাগের iDEA প্রকল্পের এই অর্জনসহ বাংলাদেশ থেকে অন্যান্য পুরস্কার বিজয়ীসহ দেশ-বিদেশের সকল অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তদের আন্তরিক অভিনন্দন জানান। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এর দুরদর্শী নেতৃত্বে এবং প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক মাননীয় উপদেষ্টা জনাব সজীব ওয়াজেদ এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে আইসিটি বিভাগ “ডিজিটাল বাংলাদেশ” বিনির্মাণে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এই সম্মাননা ভবিষ্যতে আরো সফল উদ্যোগ নিতে সকলকে অনুপ্রাণিত করবে বলে তিনি আশাবাদী।

 

এ অর্জনের বিষয়ে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) এর নির্বাহী পরিচালক জনাব পার্থপ্রতিম দেব বলেন, “এই আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়। বাংলাদেশ আইসিটি খাতে অনেক এগিয়ে গেছে এবং এই উন্নয়ন চলমান থাকবে। এই আন্তর্জাতিক সম্মাননা আমাদের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে।”

 

“উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প (iDEA)” এর প্রকল্প পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব  সৈয়দ মজিবুল হক জানান, “পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ” ক্যাটাগরিতে আন্তর্জাতিক সম্মাননা পাওয়ায় আমরা অত্যন্ত আনন্দিত এবং একই সাথে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি এবং উইটসা অ্যাওয়ার্ড নির্বাচন কমিটির প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।” তিনি আরো বলেন, এ পর্যন্ত ১৫৮ টি স্টার্টআপকে প্রি-সীড গ্র্যান্ট প্রদান করা হয়েছে এই প্রকল্পের মাধ্যমে। যাত্রার শুরু থেকে iDEA প্রকল্পটি সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানকে সঙ্গে নিয়ে পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ এর মাধ্যমে গ্রহণ করেছে নানা উদ্যোগ। প্রকল্পের উদ্যোগে ইতোমধ্যে ৮০টি প্রশিক্ষণসহ বুট ক্যাম্প, সেমিনার, ওয়ার্কশপ আয়োজন করা হয় যেখানে ৬৬৫৫ জন অংশগ্রহণকারী অংশগ্রহণ করেন। তরুণদের উৎসাহিত করতে প্রকল্প থেকে স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ (চ্যাপটার ১ এবং ২), ভারতের টেক মাহিন্দ্রা লিমিটেডের সাথে “ন্যাশনাল হ্যাকাথন অন ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজিস”, দক্ষিণ কোরিয়ার সাথে “আইডিয়াথন”, স্টার্টআপ ওয়ার্ল্ড কাপ, প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ প্রদানের পাশাপাশি ইন্টারঅপারেবল ডিজিটাল ট্রানজেকশন প্ল্যাটফর্ম (আইডিটিপি) বাস্তবায়নের কার্যক্রম গ্রহণসহ নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে সীড/গ্রোথ/গাইডেড স্টার্টআপ কোম্পানিসমূহে সরকারের পক্ষ্যে বিনিয়োগের লক্ষ্যে “স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড”শীর্ষক একটি সম্পূর্ণ সরকার মালিকানাধীন একটি পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া, মুজিববর্ষে “বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট (বিগ)” এর আওতায় দেশীয় স্টার্টআপদের পাশাপাশি বিদেশী তথ্য-প্রযুক্তিভিত্তিক ইনোভেটিভ পন্য ও সেবা সমৃদ্ধ স্টার্টআপদের নির্বাচন করে ১০০টি স্টার্টআপকে গ্র্যান্ট প্রদান করা হবে যেখানে এ উদ্যোগের বাছাইপর্বের অংশ হিসেবে একটি বিশ্ববিদ্যালয় অ্যাক্টিভেশন প্রোগ্রাম, একটি রিয়েলিটি শো এবং সর্বশেষ একটি আন্তর্জাতিক রোড শো আয়োজন করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, গতবছর ২০১৯ সালে কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ এই প্রকল্প তথ্যপ্রযুক্তিতে এশিয়ার অন্যতম বৃহৎত্তম সংগঠন “এশিয়ান-ওশেনিয়ান কম্পিউটিং ইন্ডাস্ট্রি অর্গানাইজেশন (অ্যাসোসিও)” আইসিটি এডুকেশন ক্যাটাগরিতে আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে। সবশেষে বলা যায়, দেশকে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বিশ্বের সদস্য করার লক্ষ্যে তরুণদের উদ্ভাবনী সংস্কৃতিতে অন্তর্ভুক্তকরণসহ দেশীয় উদ্ভাবক ও উদ্যোক্তাদের জন্য একটি সুগঠিত স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম গঠন করার মাধ্যমে বাংলাদেশকে তথ্য-প্র্রযুক্তিতে সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে iDEA প্রকল্প।

 

ওয়ার্ল্ড আইটি সার্ভিসেস অ্যালায়েন্স (উইটসা) প্রতিবছর এই পুরস্কারের আয়োজন করে থাকে। তথ্যপ্রযুক্তি খাতে একে সম্মাজনক পুরস্কার হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এবারের পুরস্কার সম্পর্কে উইটসা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, চলতি বছর যেসব সংস্থা মানবজাতির জন্য সর্বাধিক উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছে তাদের পুরস্কারের জন্য বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। উইটসার ওয়েবসাইটে চেয়ারম্যান ইভোন চু জানান যে, উইটসার ২০ বছরের ইতিহাসে কখনোই এর বেশি মানসম্মত দক্ষ, অনন্য এবং উল্লেখযোগ্য প্রতিষ্ঠান ও প্রকল্প পর্যালোচনার সুযোগ পাইনি। উইটসার সবচেয়ে জনপ্রিয় কর্মসূচি হচ্ছে গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স পুরস্কার। তাইপেতে ঠিক ২০ বছর আগে আইটি ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে এ পুরস্কার প্রবর্তন শুরু হয়। অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড থেকে শুরু করে বাংলাদেশ, মালয়েশিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, নাইজেরিয়া, আর্জেন্টিনা, কানাডার মতো দেশ এর সদস্য। বিশ্বের প্রতিটি কোন থেকে উদ্ভাবনী প্রতিষ্ঠানকে তুলে আনতে কাজ করে যাচ্ছে সংস্থাটি।

 

এবারের “টুয়েন্টি টুয়েন্টি উইটসা গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ডস্”-এ বাংলাদেশ থেকে অন্যান্য অ্যাওয়ার্ড বিজয়ীরা হচ্ছে কোভিড ১৯ টেক সলিউশনস ফর সিটিজ অ্যান্ড লোকালিটিজ বিভাগে সিনেসিস আইটি লিমিটেড ও তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের এটুআই প্রকল্প, ইনোভেটিভ ই-হেলথ সলুসনস বিভাগে মাইসফটের মাই হেলথ বিডি, ভার্চ্যুয়াল হসপিটাল অব বাংলাদেশ, ই-এডুকেশন অ্যান্ড লার্নিং বিভাগে বিজয় ডিজিটাল। মেরিট পুরস্কার হিসেবে ডিজিটাল অপরচুনিটি অর ইনক্লুশন বিভাগে নগদ এবং সাসটেইনেবল গ্রোথ বিভাগে ডিভাইন আইটি লিমিটেডের প্রিজম ইআরপি। বিশ্বের তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের শীর্ষস্থানীয় স্বীকৃত অন্যতম একটি আন্তর্জাতিক সংস্থা হল ডব্লিউআইটিএসএ বা উইটসা যেখানে সারা বিশ্বের ৮০টির বেশি দেশ এর সদস্য। মালয়েশিয়ায় গত ১৮ নভেম্বর ২০২০ বুধবার থেকে শুরু হয় তিন দিনের এই ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অব ইনফরমেশন টেকনোলজি (ডব্লিউসিআিইটি) সম্মেলন। সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন পুরস্কার ঘোষণা করা হয় এবং সম্মেলনের ৩য় দিন আজ ২০ নভেম্বর ২০২০ শুক্রবার সমাপনী অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। উল্লেখ্য যে, আগামীবার এই আয়োজন বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানানো হয়।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর