শিরোনাম

সালথায় অবৈধ ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন হুমকিতে ফসলি জমি

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শনিবার, নভেম্বর ২০, ২০২১ ৪:০৬:১১ অপরাহ্ণ
সালথায় অবৈধ ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন হুমকিতে ফসলি জমি
সালথায় অবৈধ ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন হুমকিতে ফসলি জমি

ফরিদপুর থেকে জাকির হোসেন

ফরিদপুরের সালথা উপজেলার আটঘর ইউনিয়নের সলিয়া ও গোবিন্দপুর এলাকার কুষ্টিয়া চকে একাধিক স্থানে ভূমিগর্ভ হতে অবৈধ ড্রেজার দিয়ে চলছে বালু উত্তোলনের মহোৎসব। ফলে হুমকিতে পড়ছে, ঘর-বাড়িসহ ফসলি জমি। থামছে না প্রভাবশালীদের দৌরাত্ম্য।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি থানার বহেরপুর ইউনিয়নের কাবুলতলা গ্রামের মৃত জয়েন সিকদারের ছেলে শরিফুল সিকদার ও আটঘর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের কামরুল দীর্ঘদিন যাবৎ এই ঐতিহ্যবাহী চক হতে একাধিক ড্রেজার ব্যবহার করে বালু উত্তোলন করে আসছে।

প্রতিদিন তারা বালু উত্তোলন ও বিক্রি করে লাভবান হলেও এলাকার ফসলি জমি, সেতু ও বিভিন্ন বসতবাড়ি হুমকির মুখে রয়েছে।

স্থানীয় গ্রামের কয়েকজন বলেন, বালু দস্যুরা এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ তাদের বাঁধা দেয়ার সাহস করে না। এরা ড্রেজার মেশিন বসিয়ে কুষ্টিয়া চক থেকে বালু উত্তোলন করছে।

নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, ২০১০ সালে বালু উত্তোলন নীতিমালায় যন্ত্রচালিত মেশিন দ্বারা ড্রেজিং পদ্ধতিতে নদীর তলদেশ থেকে বালু উত্তোলন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়াও সেতু, কালভার্ট, রেললাইনসহ মূল্যবান স্থাপনার এক কিলোমিটারের মধ্যে বালু উত্তোলন করা বেআইনি। অথচ বালু দস্যুরা সরকারি ওই আইন অমান্য করে কুষ্টিয়ার চক হতে বাড়ী ঘর, ব্রীজ ও ফসিল জমির নিকট থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে।

এ বিষয়ে বালু ক্রয়কারী সলিয়া গ্রামের মৃত মুনতাজ শেখের পুত্র মোঃ আরমান শেখ বলেন আমরা টাকা দিয়ে বালু ক্রয় করে ভরাট করছি। অন্য বালু ব্যবসায়ীরা এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

সালথা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ তাছলিমা আকতার বলেন, খুব শিগগিরই বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us