শিরোনাম

সালথায় দানবাকৃতির অবৈধ ট্রলিগাড়ির দৌরাত্ম বেড়ে যাচ্ছে দিন দিন

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : রবিবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২১ ১০:১৩:১৭ অপরাহ্ণ
সালথায় দানবাকৃতির অবৈধ ট্রলিগাড়ির দৌরাত্ম বেড়ে যাচ্ছে দিন দিন
সালথায় দানবাকৃতির অবৈধ ট্রলিগাড়ির দৌরাত্ম বেড়ে যাচ্ছে দিন দিন

ফরিদপুর থেকে জাকির হোসেন
ফরিদপুরের সালথায় দানবাকৃতির অবৈধ ট্রলিগাড়ির দৌরাত্ম বেড়ে যাচ্ছে দিন দিন। ফলে কিছুতেই কমছে না সালথা বাজারের যানজট, বেড়ে যাচ্ছে ভোগান্তি। দৈত্যাকৃতির এই দানব গাড়ির উৎপাতে অতিষ্ট জনসাধারণ।

সারা উপজেলায় অবৈধ ভাবে দাপিয়ে চলছে এই পন্য পরিবহনের যানটি।
কৃষিকাজের ব্যবহার উপযোগী করে তৈরি এই যন্ত্রটি পন্য পরিবহনের কাজে ব্যবহার করে একদিকে দুর্ঘটনার কবলে ঠেলে দিচ্ছে জনসাধারনকে অন্যদিকে গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য তৈরী করা সড়ক ব্যবস্থাকে সল্পতম সময়ের মধ্যে ধ্বংস করে দিচ্ছে।
সরেজমিন অনুসন্ধানে জানা যায়, রুস্তুম, হামজা, উলকা বা ট্রলি নামে স্থানীয় ভাবে পরিচিত এইসব যন্ত্র মূলত চাষাবাদের কাজে ব্যবহার উপযোগী করে তৈরি। চাষাবাদের মাঠে চলাচলের এই যন্ত্রটিকে একশ্রেণির মুনাফা লোভী লোক রাজনৈতিক আশ্রয়ে অতিরিক্ত চাকা সংযোজন করে ট্রাক হিসেবে ব্যবহার করছেন।

৬ চাকা বিশিষ্ট এই গাড়িগুলো ৮ফিট চওড়া এবং ৪০ফিট লম্বা। সড়কে চলাচলের কোন বৈধতা না থাকলেও ক্ষমতাশালীদের প্রভাব বিস্তার করে অবাধে চলাচল করছে দৈত্যাকৃতির ওই যানটি।
একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, সালথা উপজেলায় অন্তত ১৫০/২০০টি এমন যান রয়েছে। ৬চাকা বিশিষ্ট দৈত্যাকৃতির যানটির চালকের কোন ধরনের প্রাতিষ্ঠানিক স্বীকৃতি না থাকলেও মুনাফা লোভীদের ছত্রছায়ায় সকল সড়কে ফ্রি-স্টাইলে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে।
স্থানীয় এক ব্যক্তি নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, “ওই দানব আকৃতির যান রাস্তায় চলাচলের সময় রাস্তা কাঁপতে থাকে।

পাকা রাস্তার বেহাল দশা করেছে এই দৈত্যাকৃতির যান ট্রলি। শিঘ্রই এই দৈত্যাকৃতির যান ট্রলি সড়কে চলাচল নিষিদ্ধ না করলে সরকারের কোটি কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত গ্রামীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা বিধ্বস্ত হয়ে পড়বে”।
অভিযোগ রয়েছে এটি যারা ব্যবহার করছেন তাঁরা সবাই প্রভাবশালী। অধিকাংশ ট্রলি চলছে ক্ষমতাশালীদের ছত্র-ছায়ায়। সাধারণ মানুষের অভিযোগ, এই যানের চাকায় পিস্ট হয়ে ইতোমধ্যে প্রাণহানির ঘটনাও ঘটেছে এই উপজেলায়।
স্থানীয় কয়েকজন জানায়, “আমাদের দেশে সম্ভাবত ভারত থেকে মাহিন্দ্রা ট্রাক্টর সরকার আমদানি করছে কৃষকের স্বার্থে, যাতে কৃষক আধুনিক চাষাবাদে যুক্ত হয়ে কৃষিকাজ করতে পারে এবং সহজে ফসল ঘরে তুলতে পারে।

কিন্তু সরকারের সেই চিন্তা বা কাজ কি বাস্তবায়িত হচ্ছে ? না কোন ভাবেই তা বাস্তবায়িত হচ্ছে না বরং দেশের পাঁকা রাস্তা, কাঁচা রাস্তা সব শেষ। সব শেষ এই মাহিন্দ্রা ট্রাক্টর দিয়া। কৃষি কাজের জন্য বা কৃষকদের জন্য বা কৃষি পন্য বহন এর জন্য মাহিন্দ্রা ট্রাকটরের জুড়ি নাই কিন্তু এই যান বাহন দিয়া কোন কৃষক কি কৃষি কাজ করছে ? হাতে গোনা কিছু কৃষক কৃষি কাজ করলেও অধিকাংশ মাহিন্দ্রা ব্যবহার হচ্ছে ব্যবসায়িক কাজে ।
এ বিষয়ে সালথা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ তাছলিমা আকতার এই প্রতিবেদককে জানান, “কৃষি কাজের জন্য তৈরিকৃত ট্রলি ভিন্ন কাজে ব্যবহার করা সম্পূর্ণভাবে বেআইনি।

এছাড়া এসব যানবাহনের রেজিষ্ট্রেশন থাকতে হবে। এসব অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে”।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us