শিরোনাম

স্বামী ভাত না দেওয়াই,বিচার চাইতে এসে ভাসুরের হাতে নির্যাতনের শিকার হলেন,ছোট ভায়ের বউ।

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ১৫, ২০২১ ৫:২০:৩২ অপরাহ্ণ
স্বামী ভাত না দেওয়াই,বিচার চাইতে এসে ভাসুরের হাতে নির্যাতনের শিকার হলেন,ছোট ভায়ের বউ।
স্বামী ভাত না দেওয়াই,বিচার চাইতে এসে ভাসুরের হাতে নির্যাতনের শিকার হলেন,ছোট ভায়ের বউ।
মোঃ মিজানুর রহমান শিবগঞ্জ প্রতিনিধি চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার কল্যাণপুরে ফকল্যান্ড মোড়ের তাইফুর রহমানের মেয়ে মোসা.তাসরিফা খাতুনকে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে চরম নির্যাতনের শিকার হয়, তাঁর বড় ভাসুর ঘাতক মোঃ সোহেল এর হাতে।
অভিযোগ উঠেছে তার স্বামী মোঃ রবিউল সহ বড় ভাসুর মোঃ সোহেল বিরুদ্ধে। ১১ এপ্রিল (রোববার) সকালে তাদের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সামনে ওই গৃহবধূকে নির্যাতন করা হয়। এক লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে তাকে নির্মম নির্যাতন করেন স্বামী রবিউল ইসলাম ও তার বড় ভাসুর সোহেল এ ঘটনায় রবিউল সহ সোহেল ইসলামসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন নির্যাতিত গৃহবধূর বাবা তাইফুর রহমান।
অভিযোগটি তদন্ত করছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই মো. আমিনুল ইসলাম। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ৪ বছর আগে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার কল্যাণপুরের মৃত তরিকুল ইসলামের ছেলে রবিউল ইসলামের সঙ্গে পাশের ফকল্যান্ড মোড়ের তাইফুর রহমানের মেয়ে তাসরিফা খাতুনের বিয়ে হয়।
ওই দম্পতির মোসা. রাফিয়া খাতুন (২) নামে একটি কন্যাসন্তান রয়েছে। বিয়ের সময় তাসরিফা খাতুনের পরিবার প্রায় ২ ভরি স্বর্ণালংকার এবং বিভিন্ন আসবাবপত্রের জন্য নগদ এক লাখ টাকার যৌতুক দেন। পরে মেয়ের সুখের কথা বিবেচনা করে জামাইয়ের দাবির প্রেক্ষিতে আরও ২ লাখ ১০ হাজার টাকা যৌতুক দেয়া হয়। এর পর আরও এক লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনতে বলেন ওই গৃহবধূর স্বামী।
ও তাঁর ভাসুর সোহেল কিন্তু তাসরিফাকে অস্বীকৃতি জানালে তার ওপর স্বামীর দিন দিন নির্যাতন বেড়ে যায়। ১১ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৯টার দিকে কল্যাণপুরে বিবাদীদের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ‘সোহেল এন্টারপ্রাইজ’-এ গেলে বিবাদীরা তাসরিফার উপর ব্যাপক নির্যাতন চালায়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন।
এ ঘটনার পর তাসরিফার বাবা তাইফুর রহমান বাদী হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। এতে বিবাদী করা হয়েছে তাসরিফার স্বামী রবিউল ইসলাম, দুই ভাসুর মো. সোহেল ও মো. রুবেল আলী এবং শাশুড়ি মোসা. গিনিয়ারা বেগমকে।
তাসরিফার বাবা তাইফুর রহমান বলেন, বিয়ের পর থেকে নানা কারণে রবিউল, তার দুই ভাই ও মা আমার মেয়ের উপর নির্যাতন চালায়। মেয়ের সুখের জন্য স্বর্ণের গহনা, আসবাবপত্রসহ কয়েক দফায় নগদ দুই লাখ ১০ হাজার টাকা দিয়েছি। তারপরও তারা আমার মেয়ের উপর অত্যাচার-নির্যাতন করে আসছে।
সর্বশেষ রোববার তাদের দোকানের সামনে আমার মেয়েকে নির্মম নির্যাতন করে। আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই। এ বিষয়ে জানতে চাইলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূ তাসরিফা খাতুনকে নির্যাতনের ঘটনা শুনেছি। জেনেছি থানায় অভিযোগও হয়েছে। এ ধরনের ঘটনার আইনগত সমাধান হওয়া দরকার,বলে জানান এলাকাবাসী ওতাঁর ভুক্ত ভোগী পরিবার।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us