শিরোনাম

সড়কে এ কেমন মৃত্যু!

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, জুলাই ২৯, ২০২১ ১১:০৯:১৩ অপরাহ্ণ

চাঁদপুরে বেপরোয়া ট্রাক কেড়ে নিল এক মোটরসাইকেল আরোহীর প্রাণ। ট্রাকচাপায় পিষ্ট হওয়ার পরো দীর্ঘ পাঁচ কিলোমিটার পথ টেনে নিয়ে যায়া ওই ট্রাক। এই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী ট্রাকের চালক গোলাম মোস্তফা ডাবলুকে আটক এবং ঘাতক ট্রাকটি জব্দ করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে প্রচলিত সড়ক দুর্ঘটনা আইনে মামলা করা হয়েছে। পরে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের চাঁদখার দোকান থেকে একই সড়কে মহামায়া বাজার। দূরত্ব প্রায় পাঁচ কিলোমিটার। বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে পাঁচটা কী পৌনে ছয়টা। কখনো হালকা আবার কখনো ভারি বৃষ্টি হচ্ছে। এই সড়কের পাঁচ কিলোমিটারজুড়ে চলন্ত ট্রাকের নিচে আটকে ছিলেন মোটরসাইকেল আরোহী। ট্রাকের চালক শুধু চাকায় পিষে হত্যা করেনি তাকে। ট্রাকের নিচে আটকেপড়া এই মরদেহটি দীর্ঘ প্রায় পাঁচ কিলোমিটার টেনে নিয়ে যান।

কুমিল্লা শহরের শাসনগাছার বাসা থেকে গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে মোটরসাইকেল নিয়ে ফিরছিলেন নাসিরউদ্দিন মিজি (৪৫)। কিন্তু ঘটনাস্থল চাঁদখার দোকানের কাছে পৌঁছালে বিপরিত দিকের দ্রুতগামী ট্রাক (যশোর ট-১১-৪৩৮০) ধাক্কা দিয়ে নিচে ফেলে দেয়। এসময় মোটরসাইকেল ছিটকে পড়লেও ট্রাকের নিচে আটকে যান নাসিরউদ্দিন মিজি। আর এই অবস্থায় প্রায় পাঁচ কিলোমিটার পথ মহামায়া বাজার পর্যন্ত টেনে নিয়ে যায় তাকে।

মিঠু নামে একজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ‘মিয়ারবাজার এলাকায় সড়কের পাশে দাঁড়িয়েছিলাম। হঠাৎ লক্ষ্য করে দেখি ট্রাকের নিচে কিছু একটা ঝুলছে। এসময় কয়েকজন সিএনজি অটোরিক্শা চালককে ট্রাকটি অনুসরণ করতে বলি। একপর্যায়ে মহামায়া বাজারে সড়কে বেরিকেড দিয়ে ট্রাকটি আটকে ফেলা হয়। তখনই চোখে পড়ে ক্ষতবিক্ষত এক ব্যক্তির মরদেহ। এসময় পুলিশকে জানানো হয়। পরে চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ট্রাক ও তার চালককে আটক করে।

নিহত নাসিরউদ্দিন মিজির স্ত্রী সানজিদা আক্তার জানান, খুব ভোরে ফজরের নামাজ পড়ে তার স্বামী কুমিল্লা থেকে গ্রামের বাড়ি ফরিদগঞ্জের ধানুয়ার উদ্দেশ্যে বের হন। এর তিন ঘণ্টা পর তার স্বামীর মৃত্যুর খবর পান তিনি। তাদের দুটি শিশু সন্তান রয়েছে। দুর্ঘটনায় চালককে দায়ী না করে নিয়তির ওপর ছেড়ে দিয়ে বিনা ময়নাতদন্তে স্বামীর মরদেহ নিয়ে যান তিনি। দুর্ঘটনার জন্য ট্রাকের চালক ঘটনা অস্বীকার করে দাবি করেন, ট্রাকের নিচে কেউ আটকে ছিলেন কি না-এই বিষয় তিনি কিছুই জানতেন না।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি আব্দুর রশিদ জানান, পেশায় ঠিকাদার নাসিরউদ্দিন মিজি বিশেষ কাজে তার মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়িতে যাচ্ছিলেন। জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার পূর্ব ধানুয়া গ্রামে তার বাড়ি হলেও কুমিল্লা শহরের শাসনগাছা এলাকায় পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বসবাস করতেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us