শিরোনাম

১৭ বছর পর মাকে খুঁজে পেল ছেলে

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০ ১১:০০:৩৭ পূর্বাহ্ণ
১৭ বছর পর মাকে খুঁজে পেল ছেলে
১৭ বছর পর মাকে খুঁজে পেল ছেলে

মা বকুল বালার বয়স এখন প্রায় ৮০ বছর। ১৭ বছর আগে তিনি কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে তার ছোট মেয়ে আলো রানীকে (১৬) খুঁজতে গিয়েছিলেন। সেই থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। এতদিন পর আজ রোববার তার বড় ছেলে ঠাকুর কৃষ্ণ হাওলাদার (৪৫) তাকে খুঁজে পেয়েছেন। পটুয়াখালী শহরের সবুজবাগ এলাকার তিতাস মোড়ে মাকে খুঁজে পান ছেলে। এ সময় আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন ছেলে ঠাকুর কৃষ্ণ হাওলাদার।

জানা যায়, বকুল বালার বাড়ি পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার ডাকুয়া ইউনিয়নের তালবাড়ীয়া গ্রামে এবং ওই তালবাড়ীয়া গ্রামের মৃত মাখম চন্দ্র হাওলাদারের স্ত্রী বকুল বালা। দুই ছেলে দুই মেয়ে নিয়ে সংসার ছিল তার। দুই মেয়েরই বিয়ে হয়ে অন্যত্র চলে গেছে। তবে ছোট মেয়ে আলো রানীকে ১৬ বছর বয়সে বিয়ে দিলে কয়েকদিন পর আলো রানীকে বাপের বাড়ি ফেলে তার স্বামী ভারতে পালিয়ে যায়। এরপর আলো রানী স্বামীকে খুঁজতে ভারতে গিয়ে নিরুদ্দেশ হয়। এরপর আলো রানীর মা বকুল বালা তার মেয়েকে খুঁজতে বের হয়ে নিখোঁজ হন। সেই থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন এবং ১৭ বছর পর আজ রোববার খুঁজে পান তার ছেলে।

ঠাকুর কৃষ্ণ হাওলাদারের ছেলে (বকুল বালার নাতী) রিপন চন্দ্র হাওলাদার পটুয়াখালী সরকারি কলেজের ছাত্র। গত শুক্রবার সকালে শহরের সবুজবাগ এলাকা দিয়ে যাওয়ার সময় বকুল বালাকে দেখে সন্দেহ হলে তার বাবাকে খবর দেয়। এরপর ঠাকুর কৃষ্ণ হাওলাদার পটুয়াখালী এসে তার হারিয়ে যাওয়া মাকে চিনতে পারে।

ঠাকুর কৃষ্ণ হাওলাদার বলেন, তার মা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল। ১৭ বছর আগে আমার ছোট বোনকে খুঁজতে গিয়ে মা নিখোঁজ হন। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে আর পাইনি। শুনেছিলাম ভারতে গেছে। ভারতে গিয়েও মাকে খোঁজাখুঁজি করেছিলাম। কিন্তু কোথাও তাকে খুঁজে পাইনি। ১৭ বছর পর মাকে পেয়ে আজ আমার কী আনন্দ লাগছে তা ভাষায় বুঝাতে পারবো না।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Facebook Comments

সাম্প্রতিক খবর

Contact Us