শিরোনাম

সুবর্ণচরে কেন এত ধর্ষণ?

সুবর্ণচরে কেন এত ধর্ষণ?

সর্বশেষ সুবর্ণচরে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি। ধর্ষণের শিকার হয় উপজেলার শহীদ জয়নাল আবেদীন মডেল সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের এক ছাত্রী। ওই দিনই মেয়েটি বিষ পান করে। পরদিন তার মৃত্যু হয়। ঘটনার দিন তার মা-বাবা বাড়িতে ছিলেন না। গোসলখানায় গিয়ে যে তাকে ধর্ষণ করেছিল, মৃত্যুর আগে মা-বাবাকে তার নাম জানিয়ে গেছে মেয়েটি। বাবা দুজনের নামে মামলা করেছেন। আসামিরা ধরা পড়েনি।

চরজব্বর ইউনিয়নের চররশীদ মৌজার শামসুল আলমের এক কথায় জবাব, বিচার হয় না, তাই ঘটনা বাড়ছে। সোনাপুর-মান্নাননগর সড়কে দাঁড়িয়ে কথা হয় শামসুল আলমের সঙ্গে। তিনি নামাজ শেষে কয়েকজন মুসল্লিসহ বাড়ি যাচ্ছিলেন। তিনি এলাকার একটি মসজিদের ইমামও। শামসুল আলমের কথায় অন্যরাও সমর্থন জানান।

চরজব্বর থানার ওসি জিয়াউল হক বলেন, ‘ঘটনার প্রেক্ষাপট বলছে, ওই ছেলের কারণেই মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে। আমরা তাকে ধরার চেষ্টা করছি।’

এলাকায় সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে জিয়াউল হক বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে নেই, এ জন্য যে ধর্ষণ হচ্ছে, তা কিন্তু নয়। এখানকার ৭০ ভাগ মামলাই ভুয়া, ফাঁসানোর জন্য করা হয়। কিন্তু কী করব, কেউ এলে তো আমাদের মামলা নিতে হয়।’ তিনি বলেন, ‘গত ফেব্রুয়ারি মাসে তিনটি মামলায় ডিএনএ পরীক্ষা করা হয়। তিনটি রিপোর্টই নেগেটিভ। মানে অভিযোগ সত্য নয়।’

Facebook Comments

Contact Us